সখীপুরে দেড় বছরেও শেষ হয়নি স্কুল ভবনের নির্মাণ কাজ

58

মোস্তফা কামাল, সখীপুর ॥
টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার কালিয়াপাড়া ডাকাতিয়া মাজেদা মজিদ উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন নির্মাণ কাজ দীর্ঘদিনেও শেষ না হওয়ায় চরম ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। ব্যাহত হচ্ছে শিক্ষার্থীদের পাঠদান। ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ না করায় এমন ভোগান্তির সৃষ্টি হয়েছে। এ ব্যাপারে ওই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষকরা সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে লিখিতসহ নানাভাবে যোগাযোগ করলেও কোনো সুফল হয়নি। ফলে নতুন বছর শুরুর সঙ্গে আরও ভোগান্তির আশঙ্কা করছেন তারা।
বিদ্যালয় সূত্রে জানা যায়, বিদ্যালয়ের প্রথম ও দ্বিতীয়তলা ঊর্ধ্বমুখী ভবন নির্মাণের কাজ জেলা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তর বিগত ২০১৮ সালের (২০ সেপ্টেম্বর) দরপত্র আহবান করে। এতে মেসার্স মা ট্রেডার্স নামের একটি ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠান কাজ পায়। ওই ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে ৯ মাসের মধ্যে কাজ শেষ করার জন্য বিগত ২০১৯ সালের (২০ ফেব্রুয়ারি) কার্যাদেশ দেওয়া হয়। কিন্তু ঠিকাদার ধীরগতিতে কাজ করায় নির্দিষ্ট সময়ে কাজ শেষ করতে পারেনি।
বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইয়াছিন আলী টিনিউজকে জানান, প্রায় দুই বছর ধরে ঠিকাদার কাজ ফেলে চলে গেছে। ফোনে যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যাচ্ছে না। কাজও করছেন না। আগামী ২০২২ সালের প্রথমে নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হলে শিক্ষার্থীদের আমরা ক্লাস করাতে পারব না। ভবনের অফিস কক্ষ, শ্রেণি কক্ষ, দরজা, জানালা, বাথরুম, বিদ্যুৎ লাইন, রং, চেয়ার, বেঞ্চ, টেবিল, ফ্যানসহ যাবতীয় আসবাবপত্রের কাজ কিছুই করা হয়নি। বিদ্যালয়ে পাঁচ শতাধিক শিক্ষার্থী রয়েছে। স্কুলের টিনশেট ঘর ভেঙ্গেই একাডেমিক ভবন নির্মাণের জায়গা দেওয়া হয়েছে। সে ক্ষেত্রে শিক্ষার্থীদের পাঠদানের শ্রেণি কক্ষের সংকট প্রকট।
এ বিষয়ে ওই বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের সুপারভিশনের দায়িত্বে থাকা শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের সখীপুর উপজেলার উপ-সহকারী প্রকৌশলী নুরুল ইসলাম ঠিকাদার ওই ভবনের কাজটি ধীরগতিতে করার বিষয়টি স্বীকার করে টিনিউজকে বলেন, ঠিকাদারী প্রতিষ্ঠানকে বারবার তাগিদ দিচ্ছেন কাজটি শেষ করার জন্য। বিষয়টি উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করেছেন বলেও তিনি জানান।
সাব ঠিকাদার হারুন-অর-রশীদের মুঠোফোনে তিনি টিনিউজকে বলেন, ওই ভবনের কাজটি আমার ব্যবসায়িক অংশীদার আজাদ হোসেনের দায়িত্বে করা হচ্ছে। তিনি সম্প্রতি আর্থিক সংকটে পড়েছেন। তাঁর সঙ্গে কথা হয়েছে । খুব দ্রুত সব কাজ শেষ করে ভবনটি যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হবে। কিছুদিন আগে বেঞ্চ বিদ্যালয়ে পাঠানো হয়েছে।
এ বিষয়ে সখীপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মফিজুল ইসলাম টিনিউজকে বলেন, বিদ্যালয় ভবনের বাকি কাজ শেষ করার জন্য প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হবে।

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ