মির্জাপুরে মসজিদের ইমামকে মারপিটের প্রতিবাদে ইমাম, খতিব ও শিক্ষকদের সমাবেশ

108

স্টাফ রিপোর্টার, মির্জাপুর ॥
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে হাতকুড়া জামে মসজিদের ইমাম মাওলানা সাইফুল ইসলামকে মারপিট করার প্রতিবাদ সমাবেশ হয়েছে। শনিবার (৪ জানুয়ারি) উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের কুরনি জালাল উদ্দিন উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আমরা মির্জাপুরবাসীর আয়োজনে ইমাম, খতিব, শিক্ষকরা এই প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। এতে প্রায় পাঁচ শতাধিক বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মুসুল্লি অংশ নেন।




টাঙ্গাইলের জামিয়া আশরাফিয়া মাদ্রাসার সুপার শামসুদ্দিন শাহনুরের সভাপতিত্ব টাঙ্গাইল জেলা কওমী উলামা পরিষদের যুগ্ম সম্পাদক টাঙ্গাইলের ধুরেরচর মাদরাসার প্রধান মুফতী হাফেজ মাওলানা আব্দুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক মুফতী ইলিয়াস হাকিম, টাঙ্গাইলের সাবালিয়া ইসলামীয়া মাদ্রাসার সুপার মুফতী এরশাদুল ইসলাম আলমগীর, টাঙ্গাইল ডিস্ট্রিক্ট জামে মসজিদের খতিব মুফতী নুর মোহাম্মদ, মির্জাপুর উপজেলা কওমী উলামা পরিষদের সভাপতি মুফতী নজরুল ইসলাম, টাঙ্গাইল হোমিও কলেজের প্রফেসর ডা. হারুন অর রশিদ, সাবালিয়া ছওতুল হেরার অধ্যক্ষ মাওলানা জাকির হোসাইন, শেখ হাসিনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মসজিদের ইমাম ও খতিব মাওলানা আব্দুল্লাহ আল মামুন, হাটফতেপুর পশ্চিমপাড়া জামে মসজিদেও ইমাম হযরত মাওলানা আব্দুল বাছির, ধল্যা মাদ্রাসার সুপার মাওলানা শামসুদ্দিন, টাঙ্গাইল আশেকপুর ফারুকীয়া মাদ্রাসার দায়িত্বপ্রাপ্ত মুফতী ইলিয়াস হাকিম, হাতকৃড়া গ্রামের বীর মুক্তিযোদ্ধা সিদ্দিক হোসেন, কুরনী গ্রামের ইমাান মাস্টার, রানা মিয়া এবং মারধরের ঘটনায় আহত ঈমাম মাওলানা সাইফুল ইসলাম প্রমুখ বক্তৃতা করেন।




বক্তারা বলেন, মসজিদের বিভিন্ন বিষয় নিয়ে কমিটির সাথে বিরোধের জের ধরে গত ১৮ জানুয়ারী হাতকুড়া গ্রামের মৃত আব্দুল লতিফের দুই ছেলে আসাদুজ্জামান আসাদ ও আশরাফুল ইসলাম কদম আলী ইমাম মাওলানা সাইফুল ইসলামের ওপর চরাও হয়। স্থানীয় লোকজন এর প্রতিবাদ করলে তাদের ওপরও ক্ষিপ্ত হয় তারা। একপর্যায় তারা ইমাম বাড়ি চলে যান। আসাদ ও কদম আলী ইমামের ঘরে প্রবেশ করে বেধরক মারফিট করে এবং দাঁড়ি টেনে ছিড়ে ফেলে।




এই ঘটনায় মির্জাপুর থানায় মামলা হওয়ার ১৫ দিনেও আসামী গ্রেপ্তার না হওয়ায় তারা এই প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। সমাবেশে ক্ষোভ প্রকাশ করে বক্তারা বলেন আগামী দুই দিনের মধ্যে আসামীদের গ্রেপ্তার করা না হলে কঠোর কর্মসূচি ঘোষণা করা হবে। সমাবেশ শেষে মিছিল নিয়ে থানায় আসার আগ মুহুর্তে মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গিয়াস উদ্দিন, এসআই মোশারফ হোসেন, এসআই আবু সাঈদ উপস্থিত হন। আগামী দুইদিনের মধ্যে আসামী আসাদ ও কদম আলীকে গ্রেপ্তাররের আশ্বাস দিলে কর্মসূচী সমাপ্ত করা হয়।

 

Comments are closed.

ব্রেকিং নিউজঃ