মির্জাপুরে গলায় ওড়না প্যাঁচানো অবস্থায় গৃবধূর লাশ উদ্ধার

49

স্টাফ রিপোর্টার: টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে গলায় ওড়না প্যাঁচানো অবস্থায় এক গৃবধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বুধবার (১৩) অক্টোবর) সকালে উপজেলার গোড়াই টেকিপাড়া এলাকা থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

নিহত গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার ছোটনারিচাগারি গ্রামের লাল মিয়ার মেয়ে লাবণী আক্তার (১৮)। লাবণীকে পরিকল্পিতভাবে হত্যা করা হয়েছে দাবি করে মির্জাপুর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেছেন তার বড় ভাই।

স্থানীয় এলাকাবাসী ও পুলিশ সুত্র জানায়, পরিবারের অবাধ্য হয়ে ৫ মাস আগে প্রেমের সম্পর্ক করে বিয়ে করেন গোলাম সরোয়ার বাপ্পি (২৩) ও লাবণী। বিয়ের পর কিছুদিন বাপ্পিরা তার বড় ভাইয়ের বাড়িতে থাকেন। বেশকিছুদিন পর চাকরির উদ্দেশ্যে মির্জাপুরে আসেন বাপ্পি দম্পতি। পরে আত্মীয়-স্বজনদের মাধ্যমে গোড়াই একটি গার্মেন্টে শ্রমিক হিসেবে যোগ দিয়ে কাজ করেন বাপ্পি। এসময় গোড়াই টেকিপাড়া এলাকার তোতা মিয়ার বাসা ভাড়া নেন তারা। লাবণী তেমন কোনো কাজ না পারায় প্রতিনিয়তই তাদের সাথে পারিবারিক কলহ লেগেই থাকতো। মঙ্গলবার রাতে পানি আনতে দেরি হওয়ায় লাবণীকে মারপিট করে বাপ্পি। বিষয়টি লাবণীর ভাইকে জানানো হলে সে বাপ্পির সাথে কথা বলে তাকে শান্ত হতে বলেন এবং পরদিন এসে বিষয়টি সুরাহার প্রস্তাব দেন। কিন্তু রাত ৩ টা ৪০ মিনিটের দিকে বাপ্পি তার ও তার স্ত্রীর বড় ভাইকে ফোন দিয়ে বলেন, লাবণী আত্মহত্যা করেছে। এরপর থেকেই তার ফোন বন্ধ ও সে আত্মগোপনে আছেন। বাপ্পি গোবিন্দগঞ্জ উপজেলার আখিরাপাড়া গ্রামের নাজিম উদ্দিনের ছেলে।

 

এ ব্যাপারে নিহত লাবণীর বড় ভাই রায়হান মিয়া বলেন, ওদের মধ্যে প্রায়ই ঝগড়া হতো। আমি কালকেও বাপ্পিকে ঝগড়া করতে মানা করেছি। পরদিন এসে সব শুনে একটা ফয়সালারও প্রস্তাব দিয়েছিলাম। কিন্তু রাতে বাপ্পি আমাকে ফোন দিয়ে বলে আমার বোন নাকি আত্মহত্যা করেছে। আমি আমার বোনকে চিনি ও আত্মহত্যা করতে পারে না। যদি আত্মহত্যাও করতো তাহলে তো আমার বোনের পা উপড়ে ঝুলন্ত অবস্থায় থাকতো কিন্তু পা মাটির সাথে লেগে ছিলো। সে অভিযোগ করে বলেন, আমার বোনকে ওই বাপ্পিই পরিকল্পিতভাবে খুন করেছে। বাপ্পিকে অভিযুক্ত করে থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন তিনি।

 

মির্জাপুর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) গিয়াস উদ্দিন জানান, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে গলায় উড়না পেঁচানো অবস্থায় মেয়েটির লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। সুরতহাল শেষে ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় একটি হত্যা মামলা দায়ের হয়েছে। বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখা হচ্ছে।

 

ব্রেকিং নিউজঃ