শুক্রবার, আগস্ট 7, 2020
Home টাঙ্গাইল সখীপুর সখীপুরে মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি-সম্পাদককে আইনি নোটিশ

সখীপুরে মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি-সম্পাদককে আইনি নোটিশ

সখীপুর প্রতিনিধি: সখীপুর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি-সাধারণ সম্পাদককে আইনি নোটিশ (লিগ্যাল) দিয়েছেন চার প্রধান শিক্ষক। তিন বছর মেয়াদের কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ায় ওই কমিটিকে অবৈধ দাবি করে এ নোটিশ দেওয়া হয়। রোববার ওই নোটিশের চিঠি সখীপুর এসে পৌঁছেছে বলে জানা গেছে।

জানা যায়, গত ৩০ জুলাই ৩ বছরে জন্যে গঠিত বর্তমান কমিটির মেয়াদ শেষ হয়। সমিতির গঠনতন্ত্র অনুযায়ী মেয়াদ উত্তীর্ণ হওয়ার ৯০ দিন আগে সমিতির নির্বাচনের প্রস্তুতি ও ২১দিন আগে সাধারণ সম্পাদক দায়িত্ব নেওয়ার কথা থাকলেও তা না মেনে বর্তমান কমিটির মেয়াদ আরও ৬ মাস বাড়ানো হয়েছে, যা অবৈধ ও অগঠনতান্ত্রিক। মেয়াদ বাড়ানোর প্রতিবাদ করায় সখীপুর পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. কাইউম হোসাইন, গজারিয়া শান্তিকুঞ্জ একাডেমী উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মতিউর রহমান ভূইয়া, কালিয়ান উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আবদুস সামাদ ও নাকশালা জমির উদ্দিন উচ্চবিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. শহীদুল ইসলামকে দুই দফায় কারণ দর্শানো নোটিশ দেয় উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতি। এ সময় ওই চার শিক্ষকের বিরুদ্ধে সাংগঠনিক বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি ও সমিতি পরিপন্থী বিবিধ কার্যকলাপে জড়িত থাকার অভিযোগ আনা হয়। পরে ওই চার প্রধান শিক্ষক টাঙ্গাইল জজ কোর্টের আইনজীবী রফিকুল ইসলামের মাধ্যমে (গত ২৫ সেপ্টেম্বর সই করা) উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি মো. শহিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক মো. সাইফুল্লাহকে আইনি নোটিশ পাঠান। নোটিশ পাওয়ার ১৫ দিনের মধ্যে এসব বিষয়ে ব্যাখ্যা দেওয়ার জন্য সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদককে ওই আইনজীবী অনুরোধ করেছেন।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির একাধিক সদস্যের সঙ্গে কথা হলে তাঁরা জানান, আমরা দ্রুত এ দ্বন্ধের সমাধান করে সবাই মিলে ঐক্যবদ্ধ থাকতে চাই।
সখীপুর পাইলট উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো. কাইউম হোসাইন বলেন, আমরা চাই আহ্বায়ক কমিটি গঠন করে দ্রুত নির্বাচন দেওয়া হোক। নিরপেক্ষ অডিট কমিটি গঠন ও সকল পদে নির্বাচন। কিন্তু বর্তমান কমিটির মেয়াদ অবৈধভাবে বৃদ্ধি করা হয়েছে। প্রতিবাদ করায় চার প্রধান শিক্ষককে বহিস্কারের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি শহীদুল ইসলাম বলেন, শুনেছি, ওই চার প্রধান শিক্ষক আমাদেরকে আইনি নোটিশ দিয়েছেন। তবে ওই নোটিশ এখনো হাতে পাইনি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

ব্রেকিং নিউজঃ