সখীপুরে বাল্য বিয়ের অভিযোগে বর-কনের কারাদন্ড

115

bibah-2-644x320স্টাফ রিপোর্টারঃ

টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলায় বাল্য বিবাহের অভিযোগে এবার বর-কনে দু’জনকেই সাজা দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালত। শুক্রবার সন্ধ্যায় উপজেলা নির্বার্হী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এসএম রফিকুল ইসলাম বাল্য বিবাহের বর সাকিব খানকে এক বছর এবং কনে হেনা আক্তার লিজাকে ১৫ দিনের কারাদ- প্রদান করেন।
জানা যায়, উপজেলার নলুয়া বাছেত খান উচ্চ বিদ্যালয়ের জেএসসি পরীক্ষার্থী হেনা আক্তার লিজা বৃহস্পতিবার পরীক্ষা  শেষে বাড়ি ফেরার পথে নলুয়া গ্রামের মোনায়েম খানের বখাটে ছেলে সাকিব তার সহযোগীদের নিয়ে অপহরণ করে নিয়ে বিয়ে করে। শুক্রবার বিকেলে ছাত্রীর মা লাভলী আক্তার উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিত অভিযোগ করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসার পুলিশ নিয়ে নলুয়া এলাকার বখাটে সাকিবের চাচা আইয়ুব খানের বাড়ি থেকে বর-কনেকে আটক করে। পরে ভ্রাম্যমাণ আদালত বরকে এক বছর এবং কনেকে ১৫ দিনের কারাদ- প্রদান করেন। বাল্য বিয়ে পড়ানোর অভিযোগে স্থানীয় নিকাহ রেজিস্ট্রার কাজী হেলালকে গ্রেফতার করতে তার বাড়িতে অভিযান চালানো হয়। তাকে না পেয়ে তার নলুয়া বাজারের নিকাহ রেজিস্ট্রার অফিসে তালা ঝুলিয়ে দেন।
মেয়ের মা লাভলী আক্তার বলেন, আমার নাবালক মেয়েকে জোর পূর্বক তুলে নিয়ে বখাটে সাকিব বিয়ে করে অজ্ঞাত স্থানে আটকে রাখে। পরে আমি মেয়েকে উদ্ধারের জন্যে ইউএনও স্যারের কাছে অভিযোগ করি।
এ বিষয়ে সখীপুর উপজেলা নির্বার্হী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট এসএম রফিকুল ইসলাম বলেন, বাল্য বিবাহের অভিযোগে বর-কনেকে সাজা এবং নিকাহ রেজিস্ট্রারের কার্যালয়ে তালা দেয়া হয়েছে। নিকাহ রেজিস্ট্রার ও চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।

ব্রেকিং নিউজঃ