সখীপুরে বহেড়াতৈল ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে ১২ সদস্যের অনাস্থা

131

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার ২নং বহেড়াতৈল ইউপি চেয়ারম্যান ওয়াদুদ হোসেনের বিরুদ্ধে অনাস্থা দিয়েয়ে ১২ জন ইউপি সদস্য। দুর্নীতি, ক্ষমতার অপব্যবহার, স্বজনপ্রীতি, অশালীন কথা-বার্তা, অসদাচরণ ও অর্থ আত্মসাৎ, ভিজিএফের চাউল আত্মসাৎসহ ১০টি অনিয়মের অভিযোগে ১২ জন ইউপি সদস্য রেজুলেশন করে অনাস্থা দিয়েছেন। গত (৪ ডিসেম্বর) ইউনিয়ন পরিষদ সভাকক্ষে জরুরী সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এ ব্যাপারে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তারা সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত আবেদন করেছেন।




৭নং ইউপি সদস্য এবং প্যানেল চেয়ারম্যান উজ্জ্বল মিয়া টিনিউজকে বলেন, চেয়ারম্যান সাহেব ক্ষমতা গ্রহণের পর থেকে ওয়ার্ড সদস্যদের কোনো প্রকার পাত্তা দেননা। নিজের ইচ্ছামত সবকিছু একাই করে যাচ্ছেন। প্রতিবাদ করলে তিনি ভয়ভীতি দেখান। কোন বরাদ্দের বিষয়ে আমাদেরকে অবগত না করে তিনি একাই সিদ্ধান্ত নেন। ৬ নং ইউপি সদস্য আলাউদ্দিন মিয়া টিনিউজকে বলেন, দুস্থ মানুষকে ভিজিএফের চাল না দিয়ে তিনি তা আত্মসাৎ করেন। চেয়ারম্যানের অনিয়ম দুর্নীতি বন্ধে এবং হতদরিদ্র মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠায় তার অপসারণের দাবিতে আমরা বৈঠক করে রেজুলেশনের মাধ্যমে তার বিরুদ্ধে অনাস্থা প্রস্তাব উত্থাপন করি।




বৈঠকে উপস্থিত থেকে ওই রেজুলেশনে স্বাক্ষর করেন ১নং ওয়ার্ড সদস্য মোশারফ হোসেন হিরো মিয়া, ২নং ওয়ার্ড সদস্য বছির উদ্দিন, ৩নং ওয়ার্ড সদস্য জন তালুকদার, ৪নং ওয়ার্ড হোসাইন মাহমুদ এরশাদ, ৫নং ওয়ার্ড ইউপি সদস্য দুলাল হোসেন, ৬নং ওয়ার্ড সদস্য আলাউদ্দিন, ৭নং ওয়ার্ড সদস্য উজ্জ্বল হোসেন, ৮নং ওয়ার্ড সদস্য আনিছুর রহমান, ৯নং ওয়ার্ড সদস্য শফিকুজ্জামান, সংরক্ষিত ১,২ ও ৩ ওয়ার্ড মহিলা সদস্য আরজিনা, সংরক্ষিত ৪, ৫ ও ৬ ওয়ার্ড মহিলা সদস্য রোমেছা, সংরক্ষিত ৭,৮ ও ৯ ওয়ার্ড মহিলা সদস্য স্বপ্না আক্তার। পরে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তারা স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রী, স্থানীয় সরকার ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয় সচিব, স্থানীয় সংসদ সদস্য, জেলা প্রশাসক, টাঙ্গাইল দুর্নীতি দমন কমিশন, উপজেলা চেয়ারম্যান এবং সখীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা বরাবর লিখিত আবেদন করেন।




এ বিষয়ে বহেড়াতৈল ইউপি চেয়ারম্যান ওয়াদুদ হোসেন তার বিরুদ্ধে আনিত সব অভিযোগ অস্বীকার করে টিনিউজকে বলেন, আমাকে হেয় প্রতিপন্ন করতে পরিকল্পিত ষড়যন্ত্র চলছে।
এ ব্যাপারে সখীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফারজানা আলম টিনিউজকে জানান, লিখিত অভিযোগ হাতে পেয়েছি। তদন্ত করে আইনগত প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ