সখীপুরে কলেজ ছাত্র মাজহারুল হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন

390

সখীপুর প্রতিনিধি ॥
টাঙ্গাইলের সখীপুরে কলেজ ছাত্র মাজহারুল হত্যার বিচার দাবিতে মানববন্ধন করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১৫ সেপ্টেম্বর) এলাকাবাসীর উদ্যোগে উপজেলার কালিয়ান বাজারে এ মানববন্ধনে চারটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের শিক্ষক, শিক্ষার্থী এবং এলাকাবাসীসহ বিভিন্ন শ্রেণি পেশার তিন সহস্রাধিক মানুষ অংশ নেন।

মানব বন্ধনে বক্তব্য রাখেন, কালিয়ান উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি কামরুজ্জামান কামরুল, স্থানীয় ৯ নং ওয়ার্ডের মেম্বার রফিকুজ্জামান রতন, বীর মুক্তিযোদ্ধা তমশের আলী, ৭,৮,৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনের সদস্য স্বপ্না আক্তার, লায়ন ফেরদৌস আলম ফিরোজ কলেজের প্রভাষক আবু কাওসার, কালিয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সভাপতি আসলাম সিকদার নভেল, কালিয়ান বাজার বণিক সমিতির সাবেক সভাপতি আতিকুজ্জামান সবুজ, অবসরপ্রাপ্ত সেনা সদস্য জহিরুল ইসলাম গোলাপ, স্বদেশ মানবাধিকার বাস্তবায়ন সংস্থার দপ্তর সম্পাদক আমিন আল মামুন, বহেরাতৈল ইউনিয়ন যুব আন্দোলন সভাপতি দিদারুল ইসলাম, কালিয়ান বিদ্যানিকেতন প্রি ক্যাডেট স্কুলের পরিচালক শফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

বক্তারা এ সময় বলেন, এলাকায় এই কিশোর গ্যাং, মাদকসেবী ও বখাটেদের উৎপাত বেড়ে গেছে। এরা সংঘবদ্ধ হয়ে বিভিন্ন অপকর্মে লিপ্ত হচ্ছে। পুলিশ প্রশাসন ও অভিভাবকসহ সবাইকে এসব বখাটের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে হবে। সরকারি সাদত কলেজের মেধাবী ছাত্র মাজহারুলের হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও
তাদের আশ্রয়-প্রশ্রয়দাতাদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।

নিহতের বাবা আবদুল মালেক মিয়া বলেন, আমার ছেলে কখনো অন্যায়কে প্রশ্রয় দেয়নি। আর এলাকার মেয়েদের উত্যক্ত করার প্রতিবাদ করতে গিয়ে তাকে প্রাণ হারাতে হলো। মাজহারুলের মতো আর কোনো ছেলেক যেন এ করুণ পরিণতির শিকার হতে না হয়। আর কোনো মা-বাবাকে যেনো এভাবে সন্তান হারাতে না হয় সে জন্য আমি সরকারের কাছে আমার ছেলে হত্যার দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তি চাই।

উল্লেখ্য, উপজেলার কালিয়ান সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পাশে একটি মাঠে গত শুক্রবার (৯ সেপ্টেম্বর) বিকেলে ওই এলাকায় বিবাহিত বনাম অবিবাহিতদের মধ্যে একটি ফুটবল খেলা অনুষ্ঠিত হয়। কয়েকজন বখাটে খেলা দেখতে আসা এলাকার মেয়েদের নানাভাবে উত্যক্ত করে। এ সময় মাজহারুল তাদের উত্যক্ত করতে নিষেধ করলে ঘটনা স্থলেই দোহানীপাড়ার বখাটে ফরিদ, ইয়ারুল ও তার সহযোগীরা তাকে কিল, ঘুষি মারে।

এ ঘটনার সূত্রধরে খেলা শেষে বাড়ি ফেরার পথে ইয়ারুল ইসলাম (১৮), ছাব্বির আহমেদ (১৭) সহ সাত-আট জন মিলে দেশীয় অস্ত্র লোহার রড ও দা দিয়ে মাজহারুলকে বেধড়ক মারধর করে। এ সময় চিৎকার শুনে তার বাবা ও অন্যান্যরা মাজহারুলকে গুরুতর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে সখীপুর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যায়। কর্তব্যরত ডাক্তাররা তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে পাঠায়। পরে তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকার নিউরোসাইন্স হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানে চিকিৎসারত অবস্থায় সোমবার (১২ সেপ্টেম্বর) রাত প্রায় একটার দিকে মাজহারুলের মৃত্যু হয়।

মাজহারুল কালিয়ান দক্ষিণ পাড়া এলাকার আবদুল মালেক মিয়ার ছেলে এবং সরকারি সা’দত কলেজের অনার্স প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। এ ঘটনায় সাত জনের নাম উল্লেখ করে সখীপুর থানায় মামলা দিয়েছে নিহতের বাবা আবদুল মালেক মিয়া।

ব্রেকিং নিউজঃ