সখীপুরে কলেজ ছাত্রীকে ধর্ষণ মামলায় একজনের যাবজ্জীবন কারাদন্ড

97

আদালত সংবাদদাতা ॥
টাঙ্গাইলে এক কলেজ ছাত্রীকে অপহরণ করে দীর্ঘ দিন আটকে রেখে ধর্ষণের দায়ে এক ব্যক্তিকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (১৮ আগস্ট) বিকেলে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক খালেদা ইয়াসমিন এই রায় ঘোষণা দেন। পাশাপাশি দন্ডিত ব্যক্তিকে এক লাখ টাকা জরিমানা অনাদায়ে আরও এক বছর সশ্রম কারাদন্ড দিয়েছেন আদালত। দন্ডিত ব্যক্তি নাম বাদল মিয়া (৪৫)। সে সখীপুর উপজেলার রতনপুর গ্রামের দরবেশ আলীর ছেলে।

 

নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের সহকারী কৌঁসুলি (এপিপি) মোহাম্মদ আব্দুল কুদ্দুস টিনিউজকে জানান, ওই ছাত্রীকে বাদল মিয়া বিগত ২০১৭ সালের (১১ জানুয়ারি) ফুসলিয়ে অপহরণ করে নিয়ে যায়। পরে তাকে পরিত্যক্ত ঘরে ছয় মাস আটকে রেখে ধর্ষণ করেন। ওই বছরের (২৯ জুলাই) ওই ছাত্রীকে গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় ওই ঘর থেকে উদ্ধার করা হয়। পরে ওই ছাত্রীর ভাই বাদী হয়ে সখীপুর থানায় বাদল মিয়াকে আসামি করে মামলা দায়ের করেন। বাদল মিয়া গ্রেপ্তার হওয়ার পর আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

তদন্ত শেষে গোয়েন্দা পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) শামসুল ইসলাম বিগত ২০১৮ সালের (১ জুন) বাদল মিয়ার বিরুদ্ধে আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেন। মামলা চলাকালে বাদল মিয়া জামিনে মুক্তি পান। এরপর থেকে তিনি পলাতক রয়েছেন।

ব্রেকিং নিউজঃ