শৈত্যপ্রবাহে রোগীর চাপ ॥ টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে আলাদা ওয়ার্ড খোলার সিদ্ধান্ত

60

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলে কয়েক দিন ধরে উত্তরের হিমেল হওয়ার প্রভাবে তাপমাত্রা কমছে। তীব্র শীতের সঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে ঠান্ডাজনিত শ্বাসকষ্ট, নিউমোনিয়া, ডায়েরিয়াসহ বিভিন্ন রোগবালাই। ফলে প্রতিদিনই হাসপাতালগুলোতে রোগীর সংখ্যা বাড়তে শুরু করেছে। বাড়তি রোগী সামাল দিতে হাসপাতালগুলোকে হিমশিম খেতে হচ্ছে। এজন্য ঠান্ডাজনিত রোগীদের জন্য টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে আলাদা একটি ওয়ার্ড খোলার সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। এজন্য রোববার (৮ জানুয়ারি) থেকে আলাদা ওয়ার্ড খুলছে কর্তৃপক্ষ।




টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতাল সূত্র টিনিউজকে জানায়, ২৫০ শয্যার এই হাসপাতালে শিশু রোগীদের জন্য ২৩টি আসন রয়েছে। শুক্রবার (৬ জানুয়ারি) ভর্তি রোগীর সংখ্যা ছিল ৬৫ জন, শনিবার (৭ জানুয়ারি) ভর্তি রোগীর সংখ্যা ছিল ৬৯ জন। এদের মধ্যে ৮০ ভাগ রোগী ঠান্ডায় আক্রান্ত। এছাড়া হাসপাতালে ৫৬ জন পুরুষ ঠান্ডাজনিত রোগ নিয়ে ভর্তি রয়েছেন।




টাঙ্গাইল জেলা আবহাওয়া অফিস সূত্রে জানা যায়, শনিবার (৭ জানুয়ারি) জেলায় সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ১১ ডিগ্রি সেলসিয়াস- যা শুক্রবারের (৬ জানুয়ারি) তুলনায় দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস কম। টাঙ্গাইল আবহাওয়া অধিদপ্তরের ইনচার্জ জামাল উদ্দিন টিনিউজকে জানান, টাঙ্গাইলের তাপমাত্রা দিনদিন কমছে। আকাশে কুয়াশা রয়েছে। আকাশ পরিষ্কার হলে তাপমাত্রা আরও কমবে। এছাড়া এ অবস্থা আরও কয়েক দিন থাকবে বলেও জানান তিনি।




টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের উপ-পরিচালক খন্দকার সাদিকুর রহমান টিনিউজকে জানান, তীব্র শীতের কারণে শিশুরা নিউমোনিয়া ও বড়রা অ্যাজমায় আক্রান্ত হচ্ছেন। হাসপাতালে রোগীর চাপ বাড়ছে প্রায় চার গুণ। এদের মধ্যে প্রায় ৮০ ভাগ মানুষ ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্ত। ক্রমাগত বাড়তি রোগীর চাপে রোববার (৮ জানুয়ারি) থেকে ঠান্ডাজনিত রোগে আক্রান্তদের জন্য হাসপাতালে আলাদা ওয়ার্ড খোলার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ