রাত শেষে মির্জাপুর আসনে উপ-নির্বাচনের ভোট ॥ প্রশাসন প্রস্তুত

116

নোমান আব্দুল্লাহ ॥
রোববার (১৬ জানূযারি) টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসনের উপনির্বাচনের ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। প্রথমবারের মতো ইভিএমের মাধ্যমে এ আসনের নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। রোববার (১৬ জানূযারি) সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। এ নির্বাচনে পাঁচজন প্রার্থী থাকলেও আওয়ামী লীগ ও জাতীয় পার্টির প্রার্থীর মধ্যে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে মনে করছে স্থানীয় ভোটাররা। এদিকে নির্বাচনে জয়ের ব্যাপারে সবাই আশাবাদী।
অপরদিকে নির্বাচন সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ করতে নির্বাচনী এলাকায় একজন জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, ৮ জন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট, ৪ প্লাটুন বিজিবি, ৮১০জন পুলিশ সদস্য ও ১০টি র‌্যাবের মোবাইলটিমসহ পর্যাপ্ত সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। এছাড়াও প্রায় সাড়ে ১৮শ’ আনসার সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে।
জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, একটি পৌরসভা এবং ১৪টি ইউনিয়ন নিয়ে টাঙ্গাইল-৭ (মির্জাপুর) আসন গঠিত। এ উপনির্বাচনে ৫ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। তারা হলেন- আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী খান আহমেদ শুভ (নৌকা), জাতীয় পার্টির জহিরুল হক জহির (লাঙ্গল), বাংলাদেশ ওয়ার্কাস পার্টির গোলাম নওজব চৌধুরী (হাতুড়ি), বাংলাদেশ কংগ্রেস পার্টির রুপা রায় চৌধুরী (ডাব) এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী নুরুল ইসলাম নুরু (মোটরগাড়ি)।
টাঙ্গাইল জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এএইচএম কামরুল হাসান টিনিউজকে বলেন, নির্বাচন সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণ করতে সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হয়েছে। নির্বাচনে পর্যাপ্ত সংখ্যক আইনশৃঙ্খলা বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। সাধারণ ভোটাররা ইভিএমে যাতে সহজেই ভোট দিতে পারে, সে লক্ষে গত শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) সারাদিন মক ভোটিং করা হয়েছে। এ নির্বাচনে কোথায় কোন ধরনের সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি। আশা করছি নির্বাচন সুষ্ঠু এবং শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হবে।
মির্জাপুর উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা শরিফা বেগম টিনিউজকে জানান, ১২১টি কেন্দ্রে ইভিএম পদ্ধতিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে শেষ করতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে।
উল্লেখ্য, গত (১৬ নভেম্বর) এ আসনের সংসদ সদস্য একাব্বর হোসেন মারা গেলে আসনটি শুন্য ঘোষণা করে নির্বাচন কমিশন। নির্বাচনে ৭ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন।

ব্রেকিং নিউজঃ