মির্জাপুর হানাদারমুক্ত দিবস পালিত

137

Captureমির্জাপুর প্রতিনিধিঃ
নানা কর্মসুচীর মধ্যদিয়ে ১৩ ডিসেম্বর রোববার টাঙ্গাইলের মির্জাপুর হানাদার মুক্ত দিবস পালিত হয়েছে।
দিবসটি উপলক্ষে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ড কার্যালয় থেকে একটি র‌্যালী বের হয়ে উপজেলা শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুরাতন বাসস্ট্যান্ডে শেষ হয়। পরে এক সমাবেশে উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার অধ্যাপক দুর্লভ বিশ্বাসের সভাপতিত্বে বক্তৃতা করেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মীর শরীফ মাহমুদ, টাঙ্গাইল জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডের সাবেক কমান্ডার ফজলুল হক বীর প্রতিক, উপজেলা ডেপুটি কমান্ডার শরীফ মাহমুদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সম্পাদক সাহাদৎ হোসেন সুমন প্রমুখ।
রবিবার ১৩ ডিসেম্বর ছিল মির্জাপুর হানাদার মুক্ত দিবস। আজ থেকে ৪২ বছর আগে ৭১’র এই দিনে মির্জাপুর পাক হানাদার মুক্ত হয়। এ জন্য মির্জাপুরবাসীকে দিতে হয়েছে অনেক রক্ত এবং লড়তে হয়েছে অনেক সম্মুখ যুদ্ধে। ৭১’র ৩ এপ্রিল এ উপজেলার জামুর্কী ইউনিয়নের গোড়ান-সাটিয়াচড়ায় ঢাকার বাইরে পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে প্রথম প্রতিরোধ যুদ্ধ সংগঠিত হয়। এরপর একে একে উপজেলার পাথরঘাটা, নয়াপাড়া, হিলড়া এবং ভররাসহ অনেক স্থানে পাকবাহিনীর বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধাদের অনেক সন্মুখ যুদ্ধ হয়। ৭ মে উপজেলা সদরের মির্জাপুর এবং আন্ধরা গ্রামে পাকবাহিনী প্রথম গণহত্যা চালায়। এছাড়া ১০ থেকে ১৮ মে পর্যন্ত এ উপজেলার বিভিন্ন স্থান থেকে পাকবাহিনী এবং তাদের এদেশীয় দোসরা প্রায় শতাধিক নিরীহ বাঙ্গালিকে ধরে নিয়ে হত্যা করে। অবশেষে ১৩ ডিসেম্বর এই দিনে তৎকালীন সার্কেল অফিসে (বর্তমান ইউএনও অফিস) অবস্থানরত পাকবাহিনী মুক্তিবাহিনী এবং মিত্রবাহিনীর কাছে আত্মসমর্পণের মাধ্যমে মির্জাপুর উপজেলা পাকহানাদার মুক্ত হয় ।

ব্রেকিং নিউজঃ