মির্জাপুরে ৩৪ পরিবার পেলো জমি ও ১০ হাজার টাকা

78

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে বাংলাদেশ ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্প কর্পোরেশনের (বিসিক শিল্পপার্ক) জমিতে অবৈধভাবে বসবাসরত ৩৪টি পরিবারকে বাড়ি বানানোর জন্য জমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়া ঘর নির্মাণের জন্য শ্রমিকের মুজুরি বাবদ প্রতি পরিবারকে ১০ হাজার টাকাও দেয়া হয়। মঙ্গলবার (২০ সেপ্টম্বর) দুপুরে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গনি ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারকে জমি ও টাকা বুঝিয়ে দেন।

এ উপলক্ষে উপজেলার দেওহাটা এলাকায় এক অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়। এতে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গনি ছাড়াও মির্জাপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা হাফিজুর রহমান, উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) আমিনুল ইসলাম বুলবুল, গোড়াই ইউপি চেয়ারম্যান হুমায়ুন কবীর, ইউপি সদস্য কামরুজ্জামান ও পরি বেগম বক্তৃতা করেন।

এ সময় টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) সোহানা নাসরিন, উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা আশরাফুজ্জামান, ইউপি সদস্য আদিল খান সহ উপকারভোগী পরিবারের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন।

প্রসঙ্গত, উপজেলার গোড়াই শিল্পাঞ্চল এলাকার মোমিননগর মৌজায় বিসিক শিল্পপার্ক নির্মাণের জন্য প্রায় ৫০ একর জমি অধিগ্রহণ করা হয়। এরমধ্যে ২৫ একর সরকারি জমি রয়েছে। ওই জমি অবৈধভাবে দখল করে ৩৪টি পরিবার ঘরবাড়ি বানিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। বার বার জেলা প্রশাসকের কার্যালয় থেকে শিল্পপার্কের জমির দখল ছেড়ে দিতে বলা হলেও তারা ছাড়ছিলেন না। গত ৮ সেপ্টেম্বর বৃহস্পতিবার ভ্রাম্যমান আদালতের মাধ্যমে ওই জমি দখলমুক্ত করা হয়। ক্ষতিগ্রস্ত ৩৪ পরিবারকে একই ইউনিয়নের দেওহাটা মৌজায় প্রতি পরিবারকে ৩ থেকে ৫ শতাংশ জমি বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। এছাড়া মোমিননগর থেকে ঘর ভেঙ্গে দেওহাটা এসে তা নির্মাণের জন্য প্রতি পরিবারকে ১০ হাজার টাকা দেয়া হয়।

উপকারভোগী পরিবারের সদস্যরা জানান, আমাদের বার বার চলে আসার কথা বললেও আমরা আসিনি। পরিবারের সদস্যদের নিয়ে কোথায় যাবো, কিভাবে থাকবো এ ভেবে আসিনি। অফিসারদের কথা বিশ্বাস করিনি। এখন জমি ও টাকা পেয়ে অফিসারদের প্রতি বিশ্বাস বেড়ে গেছে।

মির্জাপুর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) আমিনুল ইসলাম বুলবুল বলেন, ৩৪টি পরিবারকে বাসস্থানের জন্য স্থায়ীভাবে ৩ থেকে ৫ শতাংশ জমি ও প্রতি পরিবারকে ১০ হাজার টাকা দেয়া হয়েছে।

 

ব্রেকিং নিউজঃ