মির্জাপুরে হত্যা মামলার আসামী জসিম ও তিন ছিনতাইকারী গ্রেফতার

120

2মির্জাপুর প্রতিনিধিঃ
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে ব্যবসায়ী আব্বাস হত্যা মামলার আসামী জসিমকে (৩৫) গ্রেফতার করেছে থানা পুলিশ। বুধবার ভোরে মির্জাপুর পৌরসভার বাওয়ার কুমারজানি গ্রামের পূর্বপাড়া থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। তার বাড়ি উপজেলা সদরের বাওয়ার কুমারজানি গ্রামে। এছাড়া পুলিশ অভিযান চালিয়ে তিন ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে।
মির্জাপুর পুলিশ জানায়, ব্যবসায়ী আব্বাসের স্ত্রী সাজেদা বেগমের সাথে একই গ্রামের সাজু মিয়ার ছেলে কালু মিয়ার সঙ্গে পরকীয়া প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এক পর্যায় সাজেদা বেগম তার স্বামী আব্বাসকে হত্যার পরিকল্পনা করে। আব্বাসের স্ত্রী সাজেদা, প্রেমিক কালু মিয়া ও সাজেদার ভাই জসিম মিলে ভাড়াটিয়া খুনি রাইজ উদ্দিন, জালাল ও ছানোয়ারকে নিয়ে বিগত ২০০৪ সালের ৪ নভেম্বর রাতে মির্জাপুর বাজারের ব্যবসায়ী আব্বাসকে হত্যা করে বাওয়ার কুমারজানি গ্রামের একটি পরিত্যাক্ত বাড়িতে ফেলে রাখে। পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে লাশ হস্তান্তর করে। এই হত্যার ঘটনায় আব্বাসের বড় ভাই আব্দুল মজিদ বাদী হয়ে কালু ও রাইজ উদ্দিনসহ ৮ জনেক আসামী করে মামলা দায়ের করেন।
বাদীর আইনজীবি অ্যাডভোকেট শফিকুল ইসলাম রিপন টিনিউজকে জানান, টাঙ্গাইল অতিরিক্ত জেলা ও দায়রা জজ (দ্বিতীয়) আদালতের বিচারক আবুল মনসুর মিয়া গত ১২ আগস্ট এই মামলার রায় ঘোষণা করেন। এতে ৬ জনকে যাবজ্জীবন ও এক লাখ টাকা করে জরিমানা অনাদায়ে আরো এক বছরের কারাদন্ডের আদেশ দেন। এই মামলা থেকে অপর দুই আসামী দোষী প্রমানিত না হওয়ায় খালাস পান বলে তিনি জানান। দন্ডপ্রাপ্তরা হলো- মির্জাপুর উপজেলার পৌর সদরের বাওয়ার কুমারজানি গ্রামের সাজু মিয়ার ছেলে জসিম, আব্বাসের স্ত্রী সাজেদা বেগম, নশকর আলীর ছেলে কালু মিয়া, কটু মিয়ার ছেলে রাইজ উদ্দিন, মানিকগঞ্জ জেলার দৌলতপুর গ্রামের মাসুদ শেখের ছেলে জালাল ও ঢাকা জেলার ধামরাই উপজেলার নান্নার গ্রামের জয়নাল আবেদীনের ছেলে ছানোয়ার। তারা সকলেই টাঙ্গাইল জেলহাজতে রয়েছেন বলে জানা গেছে। এই মামলায় আদালতের বিচারক ধামরাই এলাকার পারভেজ ও মুক্তার নামে দুই আসামীকে মামলা থেকে অব্যাহতি দেন। হত্যা মামলার প্রধান আসামী জসিম বুধবার রাতে বাওয়ার কুমারজানি গ্রামে চুরি করে পালানোর সময় এলাকাবাসী ধাওয়া করে গনপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে।
মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইন উদ্দিন টিনিউজকে বলেন, ব্যবসায়ী আব্বাস হত্যা মামলার প্রধান আসামী জসিমকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার বিরুদ্ধে সাভার, ধামরাইসহ বিভিন্ন থানায় একাধিক মামলা রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
এদিকে পুলিশ উপজেলার বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে তিন ছিনতাইকারীকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো- সদরের বাইমহাটী গ্রামের চান মিয়ার ছেলে রাজু মিয়া (২২), সওদাগড় পাড়া গ্রামের বাবুল সওদাগড়ের ছেলে ঝিনুক সওদাগড় (২৮) ও পোষ্টকামুরী গ্রামের সমেজ মিয়ার ছেলে ছোবহান মিয়া (৩০)। এ বিষয়ে মির্জাপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাইন উদ্দিন টিনিউজকে বলেন, গ্রেফতারকৃতরা সদরের বিভিন্ন এলাকায় ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধমূলক কাজের সাথে লিপ্ত রয়েছে।

ব্রেকিং নিউজঃ