মির্জাপুরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের তিনজনসহ নিহত ৭ জন ॥ আহত ৯

65

স্টাফ রিপোর্টার ॥
বঙ্গবন্ধু সেতু-ঢাকা মহাসড়কে টাঙ্গাইলের মির্জাপুর উপজেলার জামুর্কী ও দুল্যা মনসুর নামক স্থানে শনিবার (১৬ জুলাই) দুপুরে ও ভোরে পৃথক সড়ক দুর্ঘটনায় একই পরিবারের তিনজনসহ ৭ জন নিহত হয়েছে। আর এ ঘটনায় ৯ জন আহত হয়েছেন। আহতদের মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

জানা যায়, মির্জাপুর উপজেলার জামুর্কীতে শনিবার (১৬ জুলাই) দুপুর পৌনে ১২ টার দিকে মহাসড়ক পাড় হতে গিয়ে দ্রুতগামী বাসের চাপায় মা-মেয়ে ও ছেলে নিহত হন। নিহতরা হচ্ছেন- মির্জাপুর উপজেলার বাঁশতৈল পশ্চিম পাড়া গ্রামের মাসুম মিয়ার স্ত্রী পারভীন (৩৫), তার ছেলে সুমন (৮) ও মেয়ে সাদিয়া (৬)।

এ ঘটনায় স্থানীয় বিক্ষুব্ধ জনতা মহাসড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করতে থাকে। বিক্ষোভকারীরা পাকুল্লায় মহাসড়কে একটি ফ্লাইওভারের দাবি জানিয়ে ঘন্টাব্যাপী মহাসড়ক অবরোধ করে রাখেন। এ সময় মহাসড়কের উভয় পাশে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে প্রশাসন ও পুলিশের আশ্বাসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আসে। বিক্ষোভকারীরা অবরোধ তুলে নেন।

মির্জাপুর থানার (ওসি) শেখ আবু সালেহ মাসুদ করিম টিনিউজকে জানান, গৃহবধূ পারভীন তার দুই সন্তানকে নিয়ে হেঁটে মহাসড়ক পাড় হওয়ার সময় একটি যাত্রীবাহী অজ্ঞাত বাস তাদের চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই মেয়ে সাদিয়ার মৃত্যু হয়। পারভীন ও ছেলে সুমন গুরুত্বর আহত হন। তাদের উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।
টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালের পুলিশ বক্সের ইনচার্জ (এএসআই) মোহাম্মদ নবীন টিনিউজকে জানান, আহত অবস্থায় হাসপাতালে দুইজনকে আনা হয়েছিল। পরে জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক তাদের মৃত ঘোষণা করেন।

অপরদিকে, ঢাকা-টাঙ্গাইল মহাসড়কের মির্জাপুর উপজেলার ভাতগ্রাম ইউনিয়নের দুল্যা মুনসুর নামক স্থানে শনিবার (১৬ জুলাই) ভোর সাড়ে ৪টার দিকে বিনিময় পরিবহণের যাত্রীবাহী একটি বাসের ধাক্কায় ৪ যাত্রী নিহত ও ৯ যাত্রী আহত হয়েছেন। আহতদের মির্জাপুর কুমুদিনী হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা টিনিউজকে জানায়, মহাসড়কের মির্জাপুর উপজেলার ভাতগ্রাম ইউনিয়নের দুল্যা মনসুর নামক স্থানে শনিবার (১৬ জুলাই) ভোর সাড়ে ৪টার দিকে দাঁড়িয়ে থাকা ঢাকাগামী বালুভর্তি একটি ট্রাকের পেছনে বিনিময় পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাস ধাক্কা দেয়। এতে ঘটনাস্থলেই তিনজন নিহত ও ১০ জন আহত হয়। আহতদের হাসপাতালে নেওয়ার পর আরও একজনের মৃত্যু হয়। হতাহতদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। পুলিশ হতাহতদের পরিচয় জানার চেষ্টা করছে। দুর্ঘটনার পর মহাসড়কে ঢাকাগামী লেনে চলাচল বন্ধ থাকে। যানজটে আটকা পড়ে কর্মস্থলগামী মানুষকে চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়। প্রায় দুই ঘণ্টা পর মির্জাপুর থানা পুলিশ রেকারের সাহায্যে দুর্ঘটনা কবলিত বাসটি সরিয়ে নিলে সকাল পৌনে সাতটার দিকে যান চলাচল স্বাভাবিক হয়।

গোড়াই হাইওয়ে থানার ইনচার্জ (ওসি) মোল্লা টুটুল টিনিউজকে জানান, ঘটনাস্থল থেকে তিনজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। হাসপাতালে নেওয়ার পর আরও এক জনের মৃত্যু হয়। হতাহতদের নাম-পরিচয় জানার চেষ্টা চলছে। তিনি আরও জানান, ভোরে ঢাকাগামী লেনে যানজট হলেও পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দের সহায়তায় মহাসড়কে যান চলাচলে স্বাভাবিক অবস্থা ফিরিয়ে আনা হয়েছে।

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ