মির্জাপুরে পারিবারিক শ্মশানের জমি দখলের অভিযোগ

37

স্টাফ রিপোর্টার।।
টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে জোর পূর্বক পারিবারিক শ্মশানের জমি দখলের অভিযোগ পাওয়া গেছে। এই জমি দখলের ঘটনাটি ঘটেছে উপজেলার আনাইতারা ইউনিয়নের আঘৈদ গ্রামের সূত্রধর পাড়ায়। জমির মালিক বিমল সুত্রধর এ ব্যাপারে মির্জাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ করেছেন।
এদিকে শ্মশানের জমি দখল করার বিষয়ে বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) মির্জাপুর উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় ওই ইউপির চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা কামাল ময়নাল আলোচনা করেছেন বলে জানা গেছে।




অভিযোগে জানা গেছে, উপজেলার আঘৈদ মৌজায় বিমল সুত্রধরের পিতা নুয়াই চন্দ্র সুত্রধর ৬৩ খতিয়ানে ১৭৭ দাগে রঞ্জন আলীর কাছ থেকে ১৯৫৪ সালে ৪ শতাংশ জমি ক্রয় করেন। নুয়াই সুত্রধর মারা যাওয়ার পর তাঁর তিন পুত্র ওই জমি থেকে ২ শতাংশ জমি প্রতিবেশী রবি সুত্রধরের নিকট বিক্রি করেন। অবশিষ্ট ২ শতক জমিতে রয়েছে তাদের পারিবারিক শ্মশান। কিছুদিন আগে শ্মশানটি উঁচু করার জন্য মাটিও ভরাট করা হয়। কিন্তু রঞ্জন আলীর মেয়ে বিবাদী হাসনা বেগম ও তার স্বামী লতিফ মিয়া সোমবার লোকজন নিয়ে শ্মশানের জায়গায় ঘর তুলতে যান। এসময় জমির মালিক বিমল সুত্রধর (৬০) ও তার স্ত্রী তাপসী রানী (৪৮) বাধা দিতে গেলে হাসনা বেগম, তার স্বামী লতিফ মিয়া, ছেলে জয়নাল মিয়া, মেয়ে কবরী আক্তার ও লতা আক্তার তাদের ওপর হামলা করেন।




এদিকে পারিপারিক শ্মশানের জমি দখল করার বিষয়ে বৃহস্পতিবার মির্জাপুর উপজেলা আইন শৃঙ্খলা কমিটির সভায় আলোচনা করা হয়। এসময় সভায় আনাইতারা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবু হেনা মোস্তফা কামাল ময়নাল এই জমির মালিক বিমল সুত্রধর ও তার ভাইয়েরা বলে উল্লেখ করেন।
রঞ্জন আলীর নাতী জয়নাল মিয়ার সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, আমার নানা পশ্চিম পাশ থেকে ওনাদের কাছে ৪ শতাংশ জায়গা বিক্রী করেছে। তবে তাদের জায়গা দখল করেননি বলে তিনি জানান।
মির্জাপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আবু সারেহ মাসুদ করিম বলেন, বিষয়টি জেনেছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।




ব্রেকিং নিউজঃ