মির্জাপুরে দানবীর রণদা প্রসাদ ও পুত্র রবি সাহা হত্যার বিচার করা হবে-রানাদাস গুপ্ত

145

Mirzapur_22-01-2016-Ranada_@_Rabi_Picমির্জাপুর প্রতিনিধিঃ
একাত্তুরে স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় যারা দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা ও তার পুত্র ভবানী প্রসাদ সাহাকে হত্যা করেছে তাদের মধ্যে যারা জীবিত আছে তাদের বিচার পক্রিয়ায় এনে মানবতা বিরোধী আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের মাধ্যমে বিচার করা হবে। মানবতাবিরোধী আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইবুনালের প্রসিকিউটর এ্যাডভোকেট রানাদাস গুপ্ত টাঙ্গাইলের মির্জাপুরে কুমুদিনী হাসপাতাল পরিদর্শন করতে এসে শুক্রবার বিকেলে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে তিনি একথা বলেছেন।
তিনি আরো বলেন, মানবতা বিরোধী অপরাধীদের বিচার চলছে এ বিচার অব্যাহত থাকবে। এই বিচার পক্রিয়ার মধ্যে এনে রণদা প্রসাদ সাহা ও রবি সাহার হত্যাকারীদের বিচার করা সম্ভব হবে বলে তিনি উল্লেখ করেন।
শুক্রবার সকালে তিনি কুমুদিনী কমপ্লেক্্েরর লাইব্রেরীতে পৌছালে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহার পৌত্র রাজীব প্রসাদ সাহা, কুমুদিনী কল্যাণ সংস্থার পরিচালক (শিক্ষা) একুশে পদক প্রাপ্ত প্রতিভা মুৎসুদ্দি, রণদা প্রসাদ সাহার পুত্রবধু রোকেয়া পদকপ্রাপ্ত শ্রীমতি সাহা, কুমুদিনী হাসপাতালের পরিচালক ডা. দুলাল চন্দ্র পোদ্দার তাকে স্বাগত জানান। এ সময় প্রতিভা মুৎসুদ্দি ও রাজীব প্রসাদ সাহা ৭১’ এর স্বাধীনতা যুদ্ধের সময় এদেশীয় দোসরদের সহায়তায় পাকিস্তানী হানাদার বাহিনী কুমুদিনী ক্যাম্পাসসহ মির্জাপুরে যে নারকীয় হত্যাযজ্ঞ, লুটপাট ও তান্ডব চালিয়েছিল তা প্রসিকিউটর এ্যাডভোকেট রানাদাস গুপ্তের নিকট বর্ণনা করেন। ৭১’এর ৭ মে দানবীর রণদা প্রসাদ সাহা ও তার পুত্র ভবানী প্রসাদ সাহার হত্যার ঘটনা শোনে রানাদাস গুপ্ত মর্মাহত হন। পরে তিনি কুমুদিনী হাসপাতাল, ভারতেশ্বরী হোমস এবং রণদা প্রসাদ সাহার বসত বাড়ি পরিদর্শন করেন। বিকেলে তিনি ঢাকার উদ্দ্যেশে মির্জাপুর ত্যাগ করেন।

ব্রেকিং নিউজঃ