মির্জাপুরে জাসদের আহবায়ক মানিক স্যান্যাল জামানত হারাচ্ছেন

52

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলে জেলা পরিষদ নির্বাচনে ১০ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য পদে প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী ‘জাসদ’ এর মির্জাপুর উপজেলা শাখার আহবায়ক মানিক স্যান্যাল জামানত হারাচ্ছেন। তিনি এ নির্বাচনে ৩ ভোট পেয়েছেন। সোমবার (১৭ অক্টোবর) ইলেকট্রনিক্স ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে সকাল ৯টা হতে বেলা ২টা পর্যন্ত এ উপজেলার একটি পৌরসভা ও ১৪টি ইউনিয়নের ১৯৮ জন ভোটার ভোট দেন। কাস্টিং ভোটের আট ভাগের এক ভাগ ভোট না পাওয়ায় সদস্য প্রার্থী মানিক স্যান্যাল তার জামানত হারাচ্ছেন।


(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

মির্জাপুর ওয়ার্ডে সদস্য পদে মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা মহেড়া পেপার মিলের চেয়ারম্যান তাহেরুল ইসলাম (বৈদ্যুতিক পাখা) ৬৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থী মির্জাপুর উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মো. সিরাজুল ইসলাম সিরাজ (অটোরিক্্রা) ৪১ ভোট, বিএনপির সমর্থিত এড. মোস্তাফা চৌধুরী (টিউবওয়েল) ৩৫ ভোট ও মো. আরিফুল ইসলাম খান (তালা) ৫০ ভোট এবং মির্জাপুর উপজেলা জাসদের আহবায়ক মানিক স্যান্যাল (হাতি) ৩ ভোট পেয়েছেন।


(adsbygoogle = window.adsbygoogle || []).push({});

এছাড়া ৪নং ওয়ার্ড সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে (মির্জাপুর, সখীপুর ও বাসাইল উপজেলা) মির্জাপুর উপজেলা মহিলাদলের সাবেক সভানেত্রী খালেদা সিদ্দিকী স্বপ্না (দোয়াত কলম) ১৬৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তিনি মির্জাপুরে ১০৭ ভোট, বাসাইলে ৪১ ভোট ও সখিপুর উপজেলায় ১৯ ভোট পান। তার নিকটতম প্রার্থী টাঙ্গাইল জেলা মহিলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক রুমা খান (হরিণ) ১৪০ ভোট পান বলে জানা গেছে।

এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের সিনিয়র জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা এইচ এম কামরুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, যারা কাস্টিং ভোটের সাড়ে ১২ ভাগ ভোট না পাবে তাদের জামানত বাতিল করা হবে।

 

ব্রেকিং নিউজঃ