মির্জাপুরে উপ-নির্বাচনে মেয়র পদে এবারও প্রার্থী হবেন মুক্তিযোদ্ধা শহীদুর

191

এস এম এরশাদ, মির্জাপুর ॥
পাঁচবার প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে তিনবার নির্বাচিত হয়েছেন মুক্তিযোদ্ধা শহীদুর রহমান। তিনি তার আদর্শ ও কর্মগুনে দল মত নির্বিশেষে সাধারণ মানুষরে হৃদয়ে জায়গা করে নিয়েছেন। মুক্তিযোদ্ধা শহীদুর রহমান মির্জাপুর সদর ইউনিয়ন পরিষদের দুইবার চেয়ারম্যান ও মির্জাপুর পৌরসভায় একবার মেয়র নির্বাচিত হন। এর আগে তিনি একবার ইউপি সদস্য নির্বাচিত হন।
তিনি মির্জাপুর পৌরসভার উপনির্বাচনে এবারও দলীয় মনোনয়ন চাইবেন। দলীয় সমর্থন না পেলেও সাধারণ ভোটারদের অনুপ্রেরণা ও অনুরোধে তিনি মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন বলে একাধিক সুত্র নিশ্চিত করেছেন।
জানা গেছে, মুক্তিযোদ্ধা শহীদুর রহমান মির্জাপুর সদর ইউপি নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে তিনবার প্রতিদ্বন্দ্বীতা করে দুইবার নির্বাচিত ও একবার মামা আবুল কশেম কাচ্ছদেরে কাছে পরাজিত হন। বিগত ২০০০ সালে মির্জাপুর পৌরসভা গঠিত হওয়ার পর ২০০২ সালে প্রথম পৌরসভা নির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে পরাজিত হন। বিগত ২০১১ সালে দ্বিতীয় নির্বাচনে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন না পেয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থী হয়ে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী সাহাদৎ হোসেন সুমনকে পরাজিত করে মেয়র নির্বাচিত হন। নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি সুনামের সঙ্গে পরিষদ পরিচালনা ও জনগনের কাজ করেন। বিগত ২০১৫ সালে তৃতীয় নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন না পেলেও তিনি প্রার্থী না হয়ে দলীয় প্রার্থী সাহাদৎ হোসেন সুমনের পক্ষে কাজ করেন।
এদিকে রবিবার (৬ সেপ্টেম্বর) স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) নির্বাচন বিধিমালা ২০১০ এর ১০(৩) বিধি অনুসরণপূর্বক আগামী (১০ অক্টোবর) ভোট গ্রহণের দিন নির্ধারণ করে উপনির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য নির্বাচন কমিশন অনুমতি প্রদান করেছেন। উপনির্বাচনে দলীয় মনোনয়ন পেতে প্রার্থীরা ভোটারদের পাশাপাশি আওয়ামী লীগের জেলা ও উপজেলা পর্যায়ের শীর্ষ নেতাদের সাথে যোগাযোগ বাড়িয়ে দিয়েছেন। উপনির্বাচনে মেয়র পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মুক্তিযোদ্ধা শহীদুর রহমান ছাড়াও সাবেক মেয়র উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি অ্যাডভোকেট মোশারফ হোসেন মনি, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ফরহাদ উদ্দিন, উপজেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি আবুল হোসেন, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি মাজহারুল ইসলাম প্রচারণা চালাচ্ছেন।
উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য মুক্তিযোদ্ধা শহীদুর রহমান টিনিউজকে জানান, মানুষের পাশে থেকে কাজ করার মধ্য দিয়ে তিনি জনপ্রিয়তা অর্জন করেছেন। তিনি মেয়র না থাকলেও সাধারণ মানুষরে পাশে থাকবেন। এবারের উপনির্বাচনে দলীয় নেতাকর্মীরা তাকেই সমর্থন করবেন। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বিভিন্ন সংস্থার জরিপের ফলাফলের ভিত্তিতে তাকেই মনোনয়ন দেবেন বলে আশা প্রকাশ করেন। তিনি তার কর্মের মাধ্যমে মানুষের মাঝে বেঁচে থাকবেন বলে জানান।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ