মাভাবিপ্রবি’র অফিসার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সভায় ১০ লক্ষাধিক টাকার হিসাবে গড়মিল

122

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইল মাওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় অফিসার্স এসোসিয়েশনের প্রায় আড়াই বছরের ১০ লক্ষাধিক টাকার হিসাব মিলাতে না পারায় ৭ম সাধারণ সভা মুলতবি করা হয়েছে।
অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ মফিজুল ইসলাম মজনু, সাধারণ সম্পাদক সাদৎ-আল-হারুন ও কোষাধ্যক্ষ আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে করোনাকালীন সময়ে প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে প্রদানের উদ্দেশ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের অফিসারদের এক দিনের বেতনের কর্তনকৃত তিন লক্ষাধিক টাকা প্রধানমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে না দিয়ে ইচ্ছামত ব্যয় ও মাভাবিপ্রবি অফিসার্স এসোসিয়েশনের প্রায় আড়াই বছরের ১০ লক্ষাধিক টাকার ব্যয়ের হিসাবে গড়মিল হওয়ায় সাধারণ সদস্যদের চাপ ও প্রতিবাদের মুখে নির্বাচন কমিশন গঠন না করেই সাধারণ সভা মুলতবি করা হয়।
গত মঙ্গলবার (৯ নভেম্বর) বিশ্ববিদ্যালয়ের মাল্টিপারপাস ভবনে অনুষ্ঠিত অফিসার্স এসোসিয়েশনের ৭ম সাধারণ সভা শেষে এসোসিয়েশনের অন্যান্য সদস্যরা এমন অভিযোগ করেন।
সাধারণ সভার প্রথম দিকে আলোচ্য সূচির শুরুতে আয়-ব্যয়ের হিসাব নিয়ে আলোচনা শুরু হলে অন্যান্য সদস্যরা আয়-ব্যয়ের যথাযথ হিসাব চাইলে সভাপতি মোহাম্মদ মফিজুল ইসলাম মজনু, সাধারণ সম্পাদক সাদৎ-আল-হারুন ও কোষাধ্যক্ষ আবুল হোসেন যথাযথ হিসাব দিতে ব্যর্থ হওয়ায় এবং সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক কর্তৃক নিয়ম বর্হিভূতভাবে এসোসিয়েশনের ফান্ড থেকে মাসিক খরচের নামে অর্থ আত্মসাত করার প্রতিবাদে তুমুল বিতর্ক ও হট্টগোল সৃষ্টি হয়। এক পর্যায়ে সাধারণ সদস্যদের তীর্ব প্রতিবাদে সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সভা পরিচালনায় নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে সভা মুলতবি ঘোষণা করেন।
এছাড়া সোনালী ব্যাংকের কর্পোরেট হোলসেল ঋণ অনুমোদনের নামে আবেদন ফরম বিক্রি করে ৭ লক্ষাধিক টাকার কোন হিসাব নেই বলেও অভিযোগ রয়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক সদস্য টিনিউজকে বলেন, সভার শুরুতেই আয়-ব্যয়ের হিসাব নিয়ে আলোচনা শুরু হলে টেক্সটাইল বিভাগে ডেপুটি রেজিষ্টার সেলিম আল মামুনের সাথে অফিসার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাদৎ-আল-হারুন বাক বিতন্ডায় জড়িয়ে পরেন। এতে ব্যাপক হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। এবং সভা চলাকালীন এক পর্যায়ে অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ মফিজুল ইসলাম মজনু ও বাজেট শাখার ডেপুটি ডিরেক্টর মনিরুজ্জামান খানও বাক বিতন্ডায় জড়িয়ে পড়লে সভায় আরোও বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি হলে সভা মুলতবি ঘোষণা করা হয়।
অফিসার্স এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক সাদৎ-আল-হারুন বলেন, সভায় কোন গন্ডগোল হয়নি। তবে সভা মুলতবি ঘোষণা করা হয়েছে।
এ বিষয়ে অফিসার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি মোহাম্মদ মফিজুল ইসলাম মজনু বলেন, অর্থনৈতিক কোন বিষয় নয়। তবে গঠনতন্ত্র সংশোধন করার জন্য সভা মুলতবি ঘোষণা করা হয়েছে।

 

ব্রেকিং নিউজঃ