মহাসড়কে গণপরিবহনে বাড়তি ভাড়া নেয়ার অভিযোগ

78

স্টাফ রিপোর্টার ॥
লকডাউন শেষে ঢাকা-টাঙ্গাইল ও বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে চলাচল করছে গণপরিবহন। তবে গণপরিবহনে বাড়তি ভাড়া নেয়ার অভিযোগ তুলেছেন যাত্রীরা। সড়কের তারাকান্দি থেকে ঢাকাগামী অমিত ক্লাসিক পরিবহনের যাত্রীসহ অন্যান্যরা এমন অভিযোগ তোলেন। যাত্রীদের অভিযোগ ১০০ টাকা বাড়তি নেয়ার অভিযোগ করলেও পরিবহনের সহকারি ৪০ টাকা বেশি নেয়ার কথা স্বীকার করেছেন। বুধবার (১১ আগস্ট) কঠোর লকডাউন বিধিনিষেধ শিথিলের পর থেকে শুক্রবার (১৩ আগস্ট) পর্যন্ত এমন তথ্য পাওয়া গেছে।
পরিবহনের ঢাকাগামী যাত্রী গিয়াস উদ্দিন টিনিউজকে বলেন, আগে তারাকান্দি থেকে ঢাকার ভাড়া ছিল ১৮০-২০০ টাকা। এখন সেখানে ভাড়া নেয়া হচ্ছে ৩০০ টাকা। বাড়তি ভাড়া কেন নেয়া হচ্ছে, সে ব্যাপারে কিছুই বলছে না বাসের স্টাফরা। অপর যাত্রী ও রহিম স্টীল ফ্যাক্টরীতে কর্মরত হোসাইন খান টিনিউজকে বলেন, ঈদের ছুটি শেষ হলেও বিধিনিষেধের কারণে তিনি বাড়িতে ছিলেন। শুক্রবার (১৩ আগস্ট) তিনি কর্মস্থলে ফিরে যাচ্ছেন। তবে বাসের ভাড়া বাড়তি নেয়া হচ্ছে। আগে ২০০ টাকা ভাড়া ছিল। আর আজকে নেয়া হয়েছে ৩০০ টাকা। ৪০ টাকা বেশি ভাড়া নেয়ার কথা স্বীকার করেছেন তারাকান্দি থেকে ঢাকাগামী অমিত ক্লাসিক বাসের সহকারি আব্দুল মজিদ। তিনি টিনিউজকে বলেন, আগেই টিকিট বিক্রি করা হয়েছে বলেই ভাড়া বেশি নেয়া হয়েছে। সরকারিভাবে আগের ভাড়া নেয়ার কথা বলা হলেও বাড়তি ভাড়া নেয়াটা ঠিক হয়নি বলে স্বীকার করেছেন।
এলেঙ্গা হাইওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ ইয়াসির আরাফাত টিনিউজকে জানান, মহাসড়কে গণপরিবহনের সংখ্যা তুলনামূলকভাবে বাড়েনি। স্বাভাবিক গতিতেই মহাসড়কে যানবাহন চলাচল করছে। এছাড়াও বিধিনিষেধ শিথিলের প্রথমদিন মহাসড়কের কোথাও যানজট বা ধীরগতি সৃষ্টি হয়নি বলেও জানান তিনি।
এ ব্যাপারে টাঙ্গাইল বাস মিনিবাস মালিক সমিতির মহাসচিব গোলাম কিবরিয়া বড়মনি টিনিউজকে জানান, সরকারি নির্দেশনা মেনে টাঙ্গাইল বাসস্ট্যান্ড থেকে অর্ধেকবাস চলাচল শুরু করছে। চলাচলরত বাসগুলোতে সিট অনুযায়ি যাত্রী আর আগের ভাড়া নেয়া হচ্ছে। এছাড়াও কোন বাসে বাড়তি ভাড়া নেয়ার অভিযোগ পেলেই সেই গাড়ির বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও জানান তিনি।

 

ব্রেকিং নিউজঃ