মধুপুর কালিহাতী ও ঘাটাইলে স্বাস্থ্য কার্ডের রেজিস্ট্রেশন ২০ জানুয়ারি শুরু

96

Health20150812110823স্টাফ রিপোর্টারঃ

আগামী ২০ জানুয়ারি থেকে টাঙ্গাইলের তিন উপজেলায় স্বাস্থ্য কার্ড প্রদানের লক্ষ্যে রেজিস্ট্রেশন শুরু হবে। স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচীর অংশ হিসেবে দরিদ্র জনগোষ্ঠীর মধ্যে বিনামূল্যে আধুনিক চিকিৎসাসেবা দিতে এই কার্ড প্রদান করা হচ্ছে। টাঙ্গাইলের মধুপুর, কালিহাতী ও ঘাটাইলে আগামী ফেব্রুয়ারি থেকে স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচীর পাইলট প্রকল্প শুরু হবে। মঙ্গলবার সচিবালয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচীর স্টিয়ারিং কমিটির সভায় এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। স্বাস্থ্যমন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিম এতে সভাপতিত্বে করেন।
সভায় স্বাস্থ্যমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকার দরিদ্রবান্ধব সরকার। দেশ থেকে দারিদ্র্য বিমোচনে সরকার সামাজিক সুরক্ষা কর্মসূচী গ্রহণসহ নানাবিধ উদ্যোগ বাস্তবায়ন করছে। ফলে গত কয়েক বছরে দেশে দারিদ্র্যের হার অনেক কমেছে। তিনি বলেন, সরকার গরিব মানুষের জন্য স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিত করতে ইতোমধ্যে যেসব কর্মসূচী হাতে নিয়েছে তার সুফল জনগণ পাচ্ছে। মোহাম্মদ নাসিম বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশে অতি দরিদ্র মানুষ যেন জটিল রোগের চিকিৎসা বিনামূল্যে করতে পারে সে লক্ষ্যে স্বাস্থ্য সুরক্ষা কর্মসূচীর কাজ হাতে নেয়া হয়েছে।
সভায় জানানো হয়, উপজেলা ও ইউনিয়ন পর্যায়ের কমিটির মাধ্যমে টাঙ্গাইলের ঘাটাইল, মধুপুর ও কালিহাতীতে অতি দারিদ্র্য সীমার নিচে অবস্থানকারী জনগোষ্ঠীর তালিকা তৈরি করা হয়েছে। আগামী ফেব্রুয়ারি থেকে ঐ তিন উপজেলায় প্রায় এক লাখ মানুষ সর্বোচ্চ ৫০ হাজার টাকার চিকিৎসা সুবিধা দিতে স্বাস্থ্য কার্ড বিতরণ করা হবে। এই কার্ডধারী ব্যক্তিগণ কয়েকটি নির্দিষ্ট জটিল রোগের চিকিৎসাসেবা পাবেন উপজেলা, জেলা পর্যায়ের সরকারী হাসপাতাল থেকে। পরিবার প্রতি একজন এই কার্ড পাবে।
সভায় স্বাস্থ্য প্রতিমন্ত্রী জাহিদ মালেক, স্বাস্থ্য সচিব সৈয়দ মনজুরুল ইসলাম, স্বাস্থ্য অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডাঃ দীন মোঃ নুরুল হক, স্বাস্থ্য অর্থনীতি ইউনিটের মহাপরিচালক আসাদুল ইসলামসহ স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় ও বিভিন্ন সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় ও স্বাস্থ্য অধিদফতরের উর্ধতন কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন।
পরে ভারতের বিখ্যাত স্বাস্থ্যসেবা প্রদানকারী প্রতিষ্ঠান আইএএমএসএমই অব ইন্ডিয়া এবং এশিয়ান ইনস্টিটিউট অব মেডিক্যাল সায়েন্সের ৮ সদস্যের প্রতিনিধিদল স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সঙ্গে সাক্ষাত করেন। আইএএমএসএমই-এ চেয়ারম্যান রাজীব ঢাওলা এবং এশিয়ান ইনস্টিটিউটের চেয়ারম্যান পদ্মভূষণ ডাঃ নরেন্দ্র কুমার পান্ডে এই দলের নেতৃত্ব দেন।
ভারতীয় প্রতিনিধিদল বাংলাদেশে হাসপাতাল ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার স্থাপনের পরিকল্পনা সম্পর্কে মন্ত্রীকে অবহিত করেন। এ সময় স্বাস্থ্যমন্ত্রী তাদের গরিব ও সাধারণ মানুষের জন্য সহজে ও কম খরচে বিশেষায়িত চিকিৎসা প্রদানের জন্য হাসপাতাল স্থাপনের উদ্যোগ নিতে আহ্বান জানান।

 

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ