মধুপুরে যৌতুকের জন্য স্ত্রীকে কুপিয়ে খুন করলো পাষন্ড স্বামী

120

স্টাফ রিপোর্টারঃ

যৌতুকের জন্য ধারালো অস্ত্র দিয়ে কুপিয়ে স্ত্রীকে খুন করেছে পাষন্ড স্বামী। টাঙ্গাইলে মধুপুর থানা পুলিশ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্স থেকে লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। বুধবার সকালে ঘটনাটি ঘটেছে জামালপুরের শরিষাবাড়ী উপজেলার পঞ্চাশী গ্রামে।
মধুপুর থানার এসআই লিটন ও নিহতের ভাবী কোহিনুর বেগম জানান, জামালপুর জেলার শরিষাবাড়ী উপজেলার পঞ্চাশী গ্রামের শামছুল হকের মেয়ে রিনা বেগমের (২৯) পার্শ্ববর্তী কালিকাপুর গ্রামের বাহাদুর আলীর ছেলে সাইফুল ইসলামের (৩৫) সাথে বিগত ১৪/১৫ বছর আগে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই স্বামী সাইফুল ইসলাম ও তার পরিবারের লোকজন স্ত্রী রিনা বেগমের কাছে যৌতুক দাবি করে। এ নিয়ে তাদের মধ্যে ঝগড়া লেগেই থাকতো। বুধবার সকালে স্ত্রী রিনা বেগমকে তার বাবার বাড়ী থেকে ২ লাখ টাকা যৌতুক এনে দেয়ার জন্য চাপ সৃষ্টি করে। স্ত্রী এতে রাজী না হওয়ায় ধারালো দেশীয় অস্ত্র দিয়ে তাকে কুপিয়ে গুরুতর আহত করে। আহত রিনাকে উদ্ধার করে ময়মনসিংহ মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে দুপুরে মধুপুর উপজেলা সদরে পৌঁছলে অবস্থার অবনতি ঘটলে তাঁকে তাৎক্ষণিক ভাবে মধুপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মৃত ঘোষনা করেন। তাদের সংসারে অষ্টম শ্রেণি পড়–য়া একটি মেয়ে রয়েছে। খবর পেয়ে মধুপুর থানার এসআই লিটন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে গিয়ে লাশের সুরতহাল রিপোর্ট তৈরী করেন এবং লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য টাঙ্গাইল মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছেন।
এ ব্যাপারে মধুপুর থানার (ওসি) সফিকুল ইসলাম জানান, ঘটনাস্থল শরিষাবাড়ী হওয়ায় এ ঘটনার মামলা হবে শরিষাবাড়ী থানায়। আমাদের উপজেলায় মারা যাওয়ায় আমরা আমাদের দায়িত্ব পালন করেছি। অপরদিকে শরিষাবাড়ী থানার (ওসি) বিল¬াল উদ্দিন ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে জানান, এ ঘটনায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। আসামি ধরতে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠিয়েছি।

ব্রেকিং নিউজঃ