ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়ক সংস্কারের দাবীতে ১৬ কিলোমিটার পদযাত্রা

150

1স্টাফ রিপোর্টারঃ
টাঙ্গাইল-তারাকান্দি সড়কের ভূঞাপুর হতে গোপালপুর উপজেলার সোনামুই অংশের সংস্কার ও যমুনা নদীর ভাঙন ঠেকাতে নলীন হতে কুঠিবয়ড়া পর্যন্ত গাইড বাঁধ নির্মাণের দাবীতে ১৬ কিলোমিটার পদযাত্রা করেছে এলাকাবাসী। মঙ্গলবার সকালে গোপালপুর উপজেলার সোনামুই বাজার থেকে শুরু হয়ে বেলা আড়াইটায় ভূঞাপুর উপজেলা পরিষদে গিয়ে শেষ হয় পদযাত্রাটি।
জানা যায়, টাঙ্গাইল-তারাকান্দি সড়কের ভূঞাপুর হতে সোনামুই পর্যন্ত সড়কের সৃষ্ট খানাখন্দে পরিণত হয়েছে। কয়েক বছর ধরে সড়কটি সংস্কার কাজ না করার ফলে চলাচল করা যানবাহনগুলো বিকল হয়ে পড়ছে। এতে করে ওই সড়কটি দিয়ে যানবাহন চলাচল অনেক কমে গেছে। বিশেষ করে তারাকান্দি থেকে সার বোঝাই ট্রাকগুলো ভূঞাপুরের ভিতর দিয়ে গিয়ে জামালপুর হয়ে প্রায় ৬০ কিলোমিটার ঘুরে বঙ্গবন্ধু সেতু পাড় হচ্ছে। এতে ভোগান্তিতে পড়ছে সাধারণ মানুষ ও পরিবহন চালকরা। সোনামুই হতে ভূঞাপুর পর্যন্ত ২০ মিনিটের সড়ক অতিক্রম করতে এক ঘন্টার বেশি সময় লাগছে। চলাচল করা গাড়ি গর্তে পড়ে বিকল হয়ে পড়ছে। গোপালপুর ও ভূঞাপুর উপজেলার একাধিক গ্রামের মানুষ সড়ক সংস্কার ও নদী ভাঙন রোধে পদযাত্রা বের করে। এ সময় এলাকাবাসীর সাথে বিভিন্ন যানবাহনের চালক পদযাত্রায় অংশগ্রহণ করে। তারা গোপালপুর উপজেলার সোনামুই বাজার থেকে ভূঞাপুর পর্যন্ত ১৬ কিলোমিটার সড়ক পায়ে হেটে প্রতিবাদ করেন।
পদযাত্রায় নেতৃত্বদানকারী হাজী ইসমাইল খাঁ কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুস ছাত্তার খান জানান, “দীর্ঘদিন যাবত ভূঞাপুর-তারাকান্দি সড়কের সংস্কার কাজ না হওয়ায় চলাচলে অনুপযোগি হয়ে পড়েছে। খানাখন্দ গর্তে পরিণত হয়েছে। এরপরও সংস্কার কাজে উদ্যোগ নেয়নি সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। অন্যদিকে যমুনা নদীর করাল গ্রাসে একাধিক গ্রাম নদী গর্ভে হারিয়ে গেলেও ভাঙন রোধে কার্যত কোন পদক্ষেপ নেয়া হয়নি। দ্রুত সড়ক সংস্কার ও নদী ভাঙন রোধে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণের দাবীতে এলাকাবাসী রাস্তায় নেমে এসেছে। তাদের দাবী আদায়ে ১৬ কিলোমিটার পথ পায়ে হেটে পাড়ি দিয়েছে।”

ব্রেকিং নিউজঃ