বাসাইলে জিনের বাদশা গ্রেফতার

55

স্টাফ রিপোর্টার: টাঙ্গাইলের বাসাইলে কথিত ‘জিনের বাদশা’ জাহাঙ্গীর হোসেন (২২) নামের এক যুবককে গ্রেফতার করেছেন বাসাইল থানা পুলিশ। মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাতে উপজেলার কাশিল ইউনিয়নের দাপনাজোর এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতারকৃত জাহাঙ্গীর হোসেন কুমিল্লার ব্রাহ্মণপাড়া এলাকার আমীর হোসেনের ছেলে।
পুলিশ জানায়, কথিত জিনের বাদশা জাহাঙ্গীর বাসাইলের এক মেয়ের কাছে থেকে প্রতারণা করে টাকা হাতিয়ে নেয়। মেয়েটির বিয়ের পর সংসার ভেঙে যায়। পরে মেয়েটি অন্য একটি ছেলের সাথে প্রেমের সম্পর্কে জড়ায়। সেই সম্পর্কটাও ভেঙে যাওয়ার পথে। এমন অবস্থায় মেয়েটির ফেইসবুক আইডিতে কবিরাজ বাড়ি নামের একটি আইডি আসে। সেখানে যোগাযোগ করে মেয়েটি।

 

কথিত জিনের বাদশা ছেলের সাথে সম্পর্ক ঠিক করে দিবে বলে মেয়েটির কাছে থেকে প্রথমে পাঁচ হাজার টাকা নেয়। বিভিন্ন প্রলোভন দেখিয়ে টাকা নিতে থাকে। প্রতারণা করে মেয়েটির কাছে থেকে ত্রিশ হাজার টাকা নেয়। কথিত জিনের বাদশা জাহাঙ্গীর মেয়েটিকে বলে প্রেমিকের সাথে সম্পর্ক ঠিক করতে হলে নগ্ন ছবি লাগবে। মেয়েটি বিশ্বাস করে কথিত জিনের বাদশা জাহাঙ্গীরকে ছবি দেয়। পুনরায় টাকার দাবি করে মেয়েটি টাকা দিতে না চাইলে জাহাঙ্গীর বলে তোমার প্রেমিককে জিনে বান দিয়ে মেরে ফেলবে। তোমার বিয়ে হলেও কোন সন্তান হবে না বলেন জিনের বাদশা। মেয়েটিকে বিভিন্ন ভাবে ভয়ভীতি দেখাতে থাকে। মেয়েটি বুঝতে পেরে বাসাইল থানা পুলিশকে জানায়। পরে বিভিন্ন কৌশল অবলম্বন করে বাসাইল থানা পুলিশ দাপনাজোর এলাকা থেকে কথিত জিনের বাদশা জাহাঙ্গীর হোসেনকে গ্রেফতার করে।
এ ব্যাপারে বাসাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, মঙ্গলবার রাতে কথিত জিনের বাদশা জাহাঙ্গীরকে বাসাইলের দাপনাজোর এলাকা থেকে গ্রেফতার করা হয়। জিনের বাদশা জাহাঙ্গীর বিভিন্ন ভাবে কম বয়সী মেয়েদের প্রলোভন দেখিয়ে টাকা হাতিয়ে নিতো। জাহাঙ্গীর তিন বছর প্রশিক্ষণ নিয়ে প্রতারণার কাজ শুরু করে। জিনের বাদশার মূল টার্গেট ছিল মেয়ে মানুষ। শুধু একজন মেয়ে না আরও তিন-চারজন মেয়ের কাছে থেকে বিভিন্ন কাজের নাম করে বিকাশের মাধ্যমে টাকা হাতিয়ে নেয় কথিত জিনের বাদশা।

 

ব্রেকিং নিউজঃ