বাসাইলে চিকিৎসাধীন শিশুপুত্র আটক ॥ মা জেলহাজতে

162

1বাসাইল সংবাদদাতাঃ
টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসান(১২) নামে এক শিশুপুত্র ও তার মা জয়গন বেগম হেনাকে বুধবার দুপুরে পুলিশ আটক করেছে। শিশুটি বাসাইল হাজী মালেক-মাজেদা খাতুন উচ্চ বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্র। চিকিৎসাধীন শিশু হাসানকে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে দেখতে এলে তার মা জয়গন বেগম হেনাকেও পুলিশ আটক করে  জেলহাজতে পাঠায়। ঘটনাটি এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি করেছে।
জানা যায়, মঙ্গলবার দুপুরের দিকে বাসাইল পৌর শহরের মাইজখাড়া গ্রামের হাসানের ছোট ভাই (৩) এবং তার সমবয়সী চাচাতো বোন খেলা করছিল। সামান্য বিষয় নিয়ে উভয়ের সাথে ধাক্কাধাক্কি হয়। শিশুরা কান্নাকাটি করলে দুই শিশুর পরিবার এগিয়ে এলে তাদের মধ্যে হাতাহাতি হয়। এতে হাসানের চাচি আফিয়া বেগম ও হাসান আহত হয়। পরে দু’জনেই বাসাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
ওই ঘটনায় আহত আফিয়া বেগমের স্বামী হুমায়ুন বাদি হয়ে মঙ্গলবার রাতে বাসাইল থানায় হাসান ও তার মা সহ ৩ জনের বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করেন। মামলার সূত্র ধরে পুলিশ বুধবার দুপুরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন অবস্থায় পুলিশ হাসানকে আটক করে হ্যান্ডকাপ পড়িয়ে দেয়। এ সময় হাসানের মা চিকিৎসাধীন ছেলেকে দেখতে এলে পুলিশ তাকে গ্রেফতার করে জেলহাজতে পাঠিয়ে দেয়।
বাসাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র ষ্টাফ নার্স সেলিনা বেগম টিনিউজকে জানান, শিশুটি মঙ্গলবার দুপুরে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। চিকিৎসাধীন অবস্থার বুধবার দুপুরে পুলিশ তাকে আটক করে হাতে হ্যান্ডকাপ পড়িয়ে বেডের সাথে আটকে রেখে গেছে।
এ বিষয়ে মামলার আইও টাঙ্গাইলের সহকারী পুলিশ সুপার (শিক্ষানবিস) মোহাম্মদ ফরহাদ কবির টিনিউজকে জানান, তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে তাদের মধ্যে মারামারি হয়। ওই ঘটনায় আহত আফিয়া বেগমের স্বামী বাদি হয়ে বাসাইল থানায় মামলা দায়ের করলে মা ও ছেলেকে আটক করা হয়। মা জয়গন বেগমকে বুধবার বিকালে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। হাসান হাসপাতালে ভর্তি থাকায় তাকে পুলিশি হেফাজতে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। হাসপাতাল থেকে ছাড়পত্র দেয়ার পরে হাসানকেও জেলহাজতে পাঠানো হবে।

ব্রেকিং নিউজঃ