বাসাইলে অন্তঃসত্তা মহিলাকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগে মামলা

126

indexবাসাইল সংবাদদাতাঃ
টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলায় অন্তঃসত্তা মহিলাকে শারীরিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে। এতে মহিলাটির অকাল গর্ভপাত ঘটেছে বলে দাবি করা হয়েছে। নির্যাতনের শিকার মহিলার নাম রোজিনা বেগম (২৫)। সে উপজেলার বালিনা গ্রামের স্থানীয় মুদি দোকানদার আলী আজমের স্ত্রী। এ ঘটনায় আলী আজম বাদী হয়ে বাসাইল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। আসামীরা হলো- বালিনা হাটপাড়ার শাহজাহানের ছেলে আরিফ (২২), স্ত্রী শরিফা বেগম(৪০), সিদ্দিক মিয়ার ছেলে ওসমান মিয়া (২২), মাজেদ আলীর ছেলে শহিদ মিয়া (২৪), কাইমুদ্দিনের ছেলে সোলায়মান (৩০), আইনুদ্দিনের ছেলে বানিজ মিয়া ((৬০), তার ছেলে আব্দুল্লাহ (২৫), শাহাদত (৩০) সহ অজ্ঞাত ২/৩ জন।
মামলার সূত্রে জানা যায়,  দীর্ঘদিনের বিবাদের জের ধরে গত ২ নভেম্বর সকাল আনুমানিক সাড়ে ১০টা দিকে বালিনা হাটপাড়ার শাহজাহানের ছেলে আরিফের নেতৃত্বে বিবাদীরা একই এলাকার মৃত আব্দুস সাত্তারের ছেলে আলী আজমের বাড়ীর পাশে মুদির দোকানে ঢুকে আলী আজমের উপর আক্রমণ করে ও তার দোকান ভাঙচুর, টাকা-পয়সাসহ মালামাল লুট করে। এ সময় আলী আজমের সাহায্যে তার ৩ মাসের অন্তঃসত্তা স্ত্রী রোজিনা বেগম এগিয়ে এলে বিবাদীরা তাকে চুলের মুঠি ধরে টেনে হিছড়ে মাটিতে ফেলে দেয় এবং লাঠি দিয়ে পিটানোসহ তলপেটে লাথি মেরে মারাতœক আহত করে। এ সময় বিবাদীরা আজমকেও পিটিয়ে আহত করে। ওই দিনই রোজিনা ও আলী আজম বাসাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হলে অবস্থার অবনতি হওয়ায় একদিন পর কর্তৃপক্ষ রোজিনাকে টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠিয়ে দেয়।
এ ব্যাপারে বাসাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার ডাক্তার আব্দুল হাই বলেন, মহিলার দেহে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ভর্তির সময় তলপেটে বেদনা ছিল। সে গর্ভবতী ছিল রক্তক্ষরণ হওয়ায় তাকে টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়। আহত রোজিনা সেখানে ৭ দিন চিকিৎসা নেন বলে জানা যায়। টাঙ্গাইল মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন থাকা অবস্থায় তার অকাল গর্ভপাত হয়েছে বলে মামলার এজহারে দাবি করা হয়েছে। এ ব্যাপাওে রোজিনার স্বামী আলী আজম গত ১২ নভেম্বর বাদী হয়ে বাসাইল থানায় মামলা দায়ের করেছেন। ঘটনা সম্পর্কে জানতে একাধিক সংবাদকর্মী ঘটনাস্থলে গেলে বিবাদীরা তাকে নির্যাতনের কথা অস্বীকার করে বলেন, ঘটনা সঠিক নয়, বাদি শুধু হয়রানির জন্য মিথ্যা মামলা সাজিয়েছে।
এ ব্যাপারে বাসাইল থানার (এসআই) ফরিদ উদ্দিন বলেন, খুব দ্রুত চার্জশীট দেয়া হবে আসামীরা জামিনে আছে। তবে গ্রেফতার হওয়ার পূর্বেই আসামীরা জামিনে আসার কথা শুনে মামলার বাদী ন্যায় বিচার পাওয়ার ক্ষেত্রে হতাশা ব্যক্ত করেছেন।

ব্রেকিং নিউজঃ