প্রধানমন্ত্রীর সাথে বঙ্গবীরের সাক্ষাত রাজনৈতিক কৌশল-কৃষিমন্ত্রী

137

অর্ণব আল আমিন, বাসাইল ॥
আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি বলেছেন, বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে বঙ্গবীর কাদের সিদ্দিকীর একটি ঐতিহাসিক ভূমিকা রয়েছে। এ জন্য আমরা টাঙ্গাইলের মানুষ তাকে নিয়ে গর্ব, অহংকার করি। রাজনীতিতে নানা ভুলভ্রান্তি থাকতেই পারে, চিন্তা চেতনায় কিছুটা দ্বিধাবিভক্তি এসেছে। কাজেই একজন রাজনৈতিক নেতা হিসেবে, একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রীর সাথে তিনি দেখা করতেই পারেন। দেখা করার অর্থ এই নয় যে তিনি কালই আওয়ামী লীগে চলে আসবেন বা আওয়ামী লীগ করবেন। এটা রাজনৈতিক কৌশল। আপনাদেরকে অপেক্ষা করতে হবে। রাজনৈতিক নীতির আলোকেই জননেত্রী শেখ হাসিনা সিদ্ধান্ত নেবেন। এটা নিয়ে কোনো ভাবনার কারণ আছে বলে আমি মনে করি না।




বৃহস্পতিবার (২৯ ডিসেম্বর) বিকেলে টাঙ্গাইলের বাসাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের উদ্যোগে উপজেলা কেন্দ্রীয় মাঠে (বাসাইল-সখীপুর) আসনের সংসদ সদস্য এডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের পুনঃরায় জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ায় তার সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।




কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক বলেন, দুঃখজনক হলেও সত্য বিএনপি মুক্তিযুদ্ধের বিরোধী শক্তি জামায়াত, রাজাকার, আলবদরদের নিয়ে একটি অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়। তারা বলেছিল গত ১০ ডিসেম্বর সরকারের পতন ঘটিয়ে বেগম খালেদা জিয়ার নেতৃত্বে দেশ পরিচালনা করবে। এতে তারা ব্যর্থ হয়েয়েছে। আগামীকাল ৩০ তারিখে গণমিছিল করবে। এতেও তারা ব্যর্থ হবে। প্রধানমন্ত্রীর দয়ায় তিনি জেলখানা থেকে নিজ বাড়িতে রয়েছেন।




কৃষিমন্ত্রী বলেন, অতীতে আন্দোলনের নামে দোকানে আগুন দিয়েছে, জীবন্ত মানুষকে হত্যা করেছে। তারা আবারও সেই রকম পরিস্থিতি সৃষ্টি করতে চায়। সেই রকম ঘটনা আমরা বাংলাদেশ হতে দিব না। আন্দোলন করে শেখ হাসিনা সরকারের পতন ঘটানো যাবে না। বৈধ সরকার নির্বাচনের মাধ্যমে এসেছে। আরেকটি নির্বাচন করে সরকারের পতন ঘটাতে হবে। বিএনপির হুমকি ধামকি আমরা রাজনৈতিক ভাবে মোকাবেলা করবো। তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ দেশি-বিদেশি কোন শক্তির উপর নির্ভরশীল নয়। বিদেশে আমাদের কোন বন্ধু নেই। জনগণই আমাদের বন্ধু। দেশ এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা উন্নয়নের মহাসড়কে। এই মহাসড়কের গতিকে আরো গতিশীল করবো এটাই আমাদের লক্ষ্য।




সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বাসাইল উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি হাজী মতিয়ার রহমান গাউছের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন সংবর্ধেয় অতিথি স্থানীয় সংসদ সদস্য ও টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের, টাঙ্গাইল-২ আসনের সংসদ সদস্য তানভীর হাসান ছোট মনির, জাতীয় শ্রমিক লীগের সাবেক সভাপতি আব্দুস সালাম খান, টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক সুভাস চন্দ্র সাহা, সাইফুজ্জামান খান সোহেল, আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগ অর্থ মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব আমিন শরিফ স্বপন, বাসাইল পৌরসভার মেয়র আব্দুর রহিম আহমেদ, উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক মির্জা রাজিক প্রমুখ। এসময় জেলা আওয়ামী লীগ, উপজেলা আওয়ামী লীগ ও তার সহযোগী অঙ্গসংগনের নেতৃবৃন্দরা উপস্থিত ছিলেন।

ব্রেকিং নিউজঃ