পৌলী রেল সেতুর এপ্রোচ অংশের মেরামত কাজ শুরু ॥ রেল যোগাযোগ বন্ধ

115

স্টাফ রিপোর্টারঃ
টাঙ্গাইলের কালিহাতীতে বন্যার পানির প্রবল চাপে পৌলী রেল সেতুর এপ্রোস সড়কের মাটি সরে গিয়ে সৃস্ট গর্তের মেরামত কাজ শুরু করেছে রেলওয়ের ইঞ্জিনিয়ার ও কর্মীরা। সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে মেরামত কাজ শুরু হয়। এদিকে, এপ্রাস সড়কে গর্তের সৃস্টি হওয়ায় রাজধানী ঢাকার সাথে উত্তর ও দক্ষিনাঞ্চলের রেলপথে যোগাযোগ বন্ধ রয়েছে।
রবিবার (২০ আগস্ট) ভোরে কালিহাতী উপজেলার পৌলী এলাকায় বন্যার পানির প্রবল চাপে এপ্রোস সড়কে প্রায় ২০ ফুট গর্তের সৃস্টি হয়।
স্থানীয়রা জানান, রেল সেতুর এপ্রোস সড়কের বিরাট একটি অংশের মাটি সড়ে গিয়ে গর্ত দেখতে পেয়ে তারা সেখানে লাল নিশানা টাঙ্গিয়ে দেন। লাল নিশানা দেখতে পেয়ে নীলফামারীর চিলাহাটি থেকে থেকে ঢাকাগামী নীলসাগর এক্সপ্রেস ট্রেনটির চালক ট্রেন থামিয়ে দিলে ভয়াবহ দুর্ঘটনা থেকে রক্ষা পায় কয়েক হাজার যাত্রী।
রেলওয়ের পশ্চিমাঞ্চলের চীফ ইঞ্জিয়ার রমজান আলী জানান, ব্যনার পানির প্রবল চাপে এপ্রোস সড়কের মাটি ও গাডার সরে যাওয়ায় ৩০ ফুট গর্তের সৃস্টি হয়েছে। এই রুটে রেল চলাচল স্বাভাবিক করতে প্রায় ৭২ ঘন্টা সময় লাগবে বলে তিনি জানান।
টাঙ্গাইলের ঘারিন্দা রেল স্টেশন মাষ্টার মো: জালাল উদ্দিন জানান, ভোরে খুলনা থেকে ঢাকাগামী সুন্দরবন এক্সপ্রেস ট্রেনটি কালিহাতি উপজেলার পৌলী রেল ব্রীজ এলাকায় অতিক্রম করার পর পরই পৌলী রেল ব্রিজের ৩০ ফিট এলাকা জুড়ে এপ্রোচ অংশ ধসে পরে। বন্যার পানিতে মাটি নরম হয়ে যাওয়ায় এই ঘটনা ঘটেছে। এতে রেল লাইনের নিরাপত্তা জনিত কারনে ঢাকার সাথে উত্তরবঙ্গ ও দক্ষিণাঞ্চলের ট্রেন চলাচল বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। বঙ্গবন্ধু সেতুর পূর্ব স্টেশনে ঢাকাগামী রংপুর এক্সপ্রেস, বঙ্গবন্ধু সেতুর পশ্চিম স্টেশনে দিনাজপুর থেকে ঢাকাগামী একতা এক্সপ্রেস এবং ঢাকা থেকে রাজশাহীগামী ধূমকেতু এক্সপ্রেস ট্রেনগুলো জয়দেবপুর রেলস্টেশনে আটকা পড়ে আছে।

ব্রেকিং নিউজঃ