পরীক্ষার প্রক্সি দিতে গিয়ে টাঙ্গাইল কারাগারে ঢাবি শিক্ষার্থী হিমেল

167

স্টাফ রিপোর্টার ॥
অবশেষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী হামিদ শিকদার হিমেলের খোঁজ মিলেছে। নিখোঁজের চার দিন পর সোমবার (২২ নভেম্বর) তার সন্ধান পাওয়া যায়। তিনি বর্তমান সাজাপ্রাপ্ত হয়ে টাঙ্গাইল কারাগারে রয়েছেন। সোমবার (২২ নভেম্বর) বিষয়টি টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আতাউর রাব্বি টিনিউজকে নিশ্চিত করেছেন।
এর আগে গত শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) সকালে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শহীদুল্লাহ হল থেকে গ্রামের বাড়ি টাঙ্গাইলের সখীপুরে যাওয়ার কথা বলে রওনা হন হিমেল। এরপর থেকেই নিখোঁজ হন ও তার ব্যক্তিগত মোবাইল ফোনটিও বন্ধ থাকে। হিমেল বাড়ি না ফেরায় তার পরিবার ও স্বজনরা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। পরে এ ব্যাপারে গত শনিবার (২০ নভেম্বর) শাহবাগ থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি (জিডি) করা হয়। হিমেল ঢাকাস্থ সখীপুর থানা স্টুডেন্ট (ডিএসটিএস) অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক এবং টাঙ্গাইলের সখীপুর উপজেলার জামালহাটকুড়া গ্রামের বিল্লাল শিকদারের ছেলে। সে ঢাবির রসায়ন বিভাগের ২০১৪-১৫ সেশনের শিক্ষার্থী এবং বর্তমানে মাস্টার্সে অধ্যয়নরত।
এ বিষয়ে টাঙ্গাইল জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আতাউর রাব্বি টিনিউজকে জানান, ঢাবির শিক্ষার্থী হামিদ শিকদার হিমেল গত শুক্রবার (১৯ নভেম্বর) টাঙ্গাইলের একটি কেন্দ্রে খাদ্য অধিদপ্তরের উপ-খাদ্য পরিদর্শক পদে নিয়োগ পরীক্ষায় প্রক্সি (বদলি পরীক্ষা) দিতে আসে। এ সময় তার কাছ থেকে ডিজিটাল একটি ডিভাইস পাওয়া যায়। সরকারী আদেশ অমান্য করার অপরাধে ভ্রাম্যমাণ আদালতে তাকে এক মাসের কারাদন্ড দেওয়া হয়। এরপর থেকেই তিনি টাঙ্গাইল কারাগারে রয়েছে।
এদিকে, হিমেলের সন্ধান পাওয়া গেছে জেনে তাদের পরিবার ও স্বজনদের মধ্যে স্বস্তি ফিরে এসেছে। বাবা বিল্লাল শিকদার টাঙ্গাইল কারাগারে ছেলের সঙ্গে দেখা করতে যাবেন বলে জানিয়েছেন। এছাড়াও কারাগারের ভেতর থেকে হিমেল পরিবারের লোকজনের কাছে ফোন করেছিল বলেও টিনিউজকে জানান তিনি।
এ বিষয়ে টাঙ্গাইলের জেলা প্রশাসক ড. আতাউল গনি টিনিউজকে জানান, অবৈধ ডিভাইস নিয়ে বদলি পরীক্ষা দিতে গিয়ে ঢাবির শিক্ষার্থী হিমেল ভ্রাম্যমাণ আদালতে এক মাসের বিনাশ্রম কারাদন্ড দেওয়ার বিষয়টি অবগত করেছেন তার কার্যালয়ের নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট।

 

ব্রেকিং নিউজঃ