নির্বাচিত মেয়র প্রার্থীরা প্রতিশ্রুতি রাখবেতো!

190

Pourosova-Elec-2-735x440জাহিদ হোসেনঃ

সংসদ নির্বাচন হোক আর স্থানীয় সরকার নির্বাচন হোক প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতির শেষ নেই। মহৎ কাজের উদ্যোগ নিয়ে কেউ প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকে আবার কেউ কেউ ভোটারদের মন জয় করতে নানা রকমের প্রতিশ্রুতি দিয়ে থাকে। নির্বাচনে জয়ী হওয়ার পর কেউ প্রতিশ্রুতি মতো কাজ করার চেষ্টা করে। কেউ চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়। আবার এমন কিছু প্রার্থী থাকে যারা নির্বাচনের পূর্বের দেয়া প্রতিশ্রুতি জয়ী হওয়ার পর ভুলেই যায়। পরবর্তীতে নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষের মাঝে সৃষ্টি হয় মিশ্র প্রতিক্রিয়া। দ্বিতীয়বার প্রার্থী হয়ে নির্বাচনে অংশ নিলে নানা প্রশ্নের সম্মক্ষিণ হয় সেইসব প্রার্থীরা। ৩০ ডিসেম্বর পৌর নির্বাচনেও মেয়র প্রার্থীরা নানামূখী প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ভোটারদের। সাধারণ ভোটারদের মাঝে প্রশ্ন উঠেছে নির্বাচনের আগে দেয়া প্রতিশ্রুতি জয়ী হওয়ার পর মনে রাখবেতো মেয়র প্রার্থীরা!
পৌরসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে টাঙ্গাইলের আটটি পৌরসভায় সাধারণ ভোটারদের সামনে নানামুখী উন্নয়নের প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা। নিজেকে যোগ্য ও উন্নয়নমনা প্রমান করতেই প্রার্থীরা এসব প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। না আওয়ামী লীগ, না বিএনপি সব দলের প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতিতে কমতি নেই। যদিও জেলার পৌর এলাকার রাস্তা ঘাট থেকে শুরু করে উন্নয়নমুলক তেমন কাজ চোখে পড়ার মতো নেই। তবুও প্রার্থীদের প্রতিশ্রুতির প্রতি সাধারণ ভোটারদের দুর্বলতা রয়েছে।
নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনিত মেয়র প্রার্থীরা সাধারণ ভোটারদের কাছে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, নির্বাচিত হলে ও ক্ষমতা গ্রহণের প্রথমেই পৌরবাসীর অবহেলিত জীবনমান উন্নয়নে কাজ করবেন। বর্তমান সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা বজায় রেখে কাজ করে যাবেন। পৌরবাসীর নাগরিক সুবিধার পাশাপাশি মাদকদ্রব্য নির্মূলসহ সামাজিক অবক্ষয়রোধে সর্বোচ্চ পদক্ষেণ গ্রহণ করবেন। পৌরবাসীর নিরাপত্তা নিশ্চিতে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি পাড়া-মহল্লায় কমিউনিটি পুলিশের দায়িত্ব বৃদ্ধির প্রতি সুদৃষ্টি দেবেন। এছাড়া সন্ত্রাস, ভুমিদস্যু রোধ করা হবে। সেই সাথে পৌর এলাকায় লাইটিং, পাঁকা রাস্তা, ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন করা হবে বলেও জানিয়েছেন তারা।
অপরদিকে বিএনপি মনোনিত মেয়র প্রার্থীরা সাধারণ ভোটারদের কাছে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, তারা নির্বাচিত হলে অবহেলিত পৌরসভার উন্নয়নের পাশাপাশি সর্বোচ্চ নাগরিক সুবিধার দিকে নজর দেবেন। পয়ঃনিস্কাশন ও ড্রেনেজ ব্যবস্থা নিশ্চিতে সর্বোচ্চ পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন। সন্ত্রাস দমন ও মাদক নির্মূলে বিশেষ ভূমিকা রাখার পাশাপাশি পৌরবাসীর নিরাপত্তা বিধানে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর পাশাপাশি তারা সামাজিক নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করবেন বলেও জানান।
প্রার্থীরা এ রকম কিছু সুনিদিষ্ট প্রতিশ্রুতির কথা জানালেও সমর্থকরা প্রার্থীর পক্ষে এর অধিক প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন। নির্বাচনী এলাকার সাধারণ মানুষের মিশ্র প্রতিক্রিয়ায় জানা যায়, নির্বাচনী প্রচরণায় বলে থাকে “আসবে এবার শুভদিন ধানের শীষে ভোট দিন” “উন্নয়ন যদি দেখতে চাই-নৌকা ছাড়া গতি নাই,” আবার বর্তমানে মেয়র পদে থাকা প্রার্থীদের পক্ষে সমর্থকরা বলছেন “পুরানো চাউল ভাত বাড়ে” নতুন প্রার্থীর পক্ষের সমর্থকরা বলছে পুরোনো লোককে দেখলেন এবার নতুন করে আমাকে দেখেন, একবার সেবা করার সুযোগ দিন। কিন্তু সাধারণ মানুষের ধারণা এগুলো কথার কথা। প্রচার মাধ্যম মাত্র। তারা আরো বলেন “ভোটের আগে ভাই-ভাই, ভোটের পরে নাই-নাই, হিন্দু-মুসলিম ভাই-ভাই মাদকমুক্ত সমাজ চাই।” এমন উক্তির বিপক্ষে ভোটাররা বলছেন, প্রতিবার ভোট এলে আমাদের কদর বাড়ে। কিন্তু ভোটের পর আর কোন খবর থাকে না। তারপরও ভোট অনেক আনন্দের। এবার শুধু প্রতীক নয়, যোগ্য প্রার্থীকেই ভোট দিব।
টাঙ্গাইল জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জোয়াহেরুল ইসলাম জোয়াহের জানান, দলীয়ভাবে নির্বাচনে নিজ দলের প্রার্থীদের জয়যুক্ত করতে সবাই একত্রে কাজ করেছেন। কখনও মাঠে আবার কখনও দূও থেকে প্রার্থী ও নেতাকর্মীদের উৎসাহ যুগিয়েছেন। আট পৌরসভায়ই এবার দলীয় প্রার্থীদের জয়ের বিষয়ে আশাবাদ ব্যক্ত করে বলেন, নির্বাচনে যোগ্য প্রার্থীদের মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। সরকারের উন্নয়নের ধারাবাহিকতা রাখতে ভোটাররা নৌকা মার্কায় ভোট দিবে।
এদিকে জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক শামসুল আলম তোফা জানান, নির্বাচন সুষ্ট হলে এবং ভোটাররা ভোট কেন্দ্রে ভোট দিতে পারলে আমাদের প্রার্থীরা জয়লাভ করবে। তিনি আশা ব্যক্ত করেন, সরকার জনগণকে একটি অবাধ, সুষ্ঠ ও নিরপেক্ষ একটি পৌরসভা নির্বাচন উপহার দিবেন।
জেলার সুশীল সমাজ ও রাজনৈতিক বিশ্লেষকরা বলেন, টাঙ্গাইলের আটটি পৌরসভাতেই বিগত দিনগুলোতে যথাযথ উন্নয়ন হয়নি। যদি পর্যাপ্ত উন্নয়ন হতো বা কোন প্রার্থী নির্বাচনী এলাকায় যথাযথ উন্নয়ন করে পরবর্তী নির্বাচনে ঐ প্রার্থীকে ভোটের জন্য ভোটারদের দ্বারে দ্বারে ঘুরতে হবে। ভোটারই প্রার্থীর পিছু ছুটবে।

ব্রেকিং নিউজঃ