ধনবাড়ীতে সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান মাতালেন ওসি

74

স্টাফ রিপোর্টার ॥
স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তী ও মুজিববর্ষে বিজয় দিবস দিনব্যাপী নানা আয়োজনে পালিত হয়েছে। সূবর্ণ জয়ন্তী উদযাপনকে ঘিরে দেশজুড়ে সবাই ছিল মাতোয়ারা। আবাল, বৃদ্ধ, বনিতা সবাই এ দিবসটি উপভোগ করেছে।
স্বাধীনতার সূবর্ণ জয়ন্তীতে টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীবাসীর আনন্দকে আরও কয়েকগুণ বাড়ীয়ে দিয়েছে ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চান মিয়া। উপজেলা প্রশাসনের আয়োজন সারা দিনের কর্মসূচি শেষে বৃহস্পতিবার (১৬ ডিসেম্বর) সন্ধ্যায় অনুষ্ঠিত হয় উপজেলা চত্বরে ‘সাংস্কৃতিক সন্ধ্যা’।
এ অনুষ্ঠান উপভোগ করতে সন্ধ্যা থেকেই জড়ো হতে থাকে উপজেলার বিভিন্ন বয়সের শ্রেণি পেশার দর্শক। অনুষ্ঠানটি যথাসময়ে শুরু হলেও দর্শকদের মন কাড়া তেমন কোন গান কোন শিল্পী গায়নি। এনিয়ে হতাশা দেখা দেয় দর্শকদের মাঝে। এ হতাশা বুঝতে পেরে সরাসরি মঞ্চে উঠে ওসি। মাউথ পিছ হাতে নিয়েই শুরু করে দেশের গান। তার কণ্ঠে গান শোনে স্বাস্তি ফিরে আসে দর্শকের মাঝে। একের পর এক গান দর্শকদের অনুরোধে গাইতে থাকে। এতে দর্শকরা শান্ত হয়। গানগুলোর মধ্য ছিল- ‘তীর হারা এই ঢেউয়ের সাগর পাড়ি দিব রে…, ছিল না বিজলী বাতি, ছিল না হারিকেন কুপি সাথী, ফ্যান ছিল না রাত-দিন গরমে ঘামাইতাম। আমায় ভাসায় লি রে, আমায় ডুবায় লি রে।’ তিনি এভাবেই পরপর দশটি গান পরিবেশন করে সবার মন জয় করেন। গানের তালে-তালে নাচে উঠে দর্শকরা।
অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন ধনবাড়ী উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হারুনার রশীদ হীরা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) সামিউল হক, পৌরসভার মেয়র মুহাম্মদ মনিরুজ্জামান বকল, উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা শামছুল হুদা, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান জেব-উন-নাহান লিনা বকল, উপজেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক তোফাজ্জাল হোসেন ও বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।
উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান হারুনার রশীদ হীরা বলেন, আমাদের ওসি সাহেব খুবই ভালো গান গায়। তিনি অনুষ্ঠানে গান গেয়ে সবাইকে মাতিয়ে তোলে।
ধনবাড়ী থানা পুলিশ সূত্রে জানা যায়, ওসি চান মিয়া যোগদানের পরপরই আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির উন্নতি, বিভিন্ন অপরাধমূলক কর্মকান্ড দমনে কাজ করে যাচ্ছে। থানা পুলিশের সকল সহকারীদের নিয়ে সেবার মান বাড়িয়েছে। পুলিশ সম্পর্কে ধনবাড়ীবাসীর নেতিবাচক ধারণা পাল্টেছে। বিভিন্ন স্কুল-কলেজ শিক্ষার্থীদের বাড়ীতে গিয়ে পড়ালেখার খোঁজ নিচ্ছে। তিনি একজন সাংস্কৃতিক মনের মানুষ।
মাদ্রাসা শিক্ষক ও মানবাধিকারকর্মি শহিদুল্লাহ বলেন, ওসি চান মিয়া যোগদানের পর থেকেই পাল্টাতে থাকে ধনবাড়ী থানা পুলিশের সেবার মান। এ থানায় অনেক অফিসার কর্মরত ছিল, কিন্তু তার মত কেউ আন্তরিক ছিল না। একজন সৎ, নির্ভীক, কর্মঠ ও নির্অহংকারী মনের অধিকারী পুলিশ অফিসার হিসাবে সবার নিকট পরিচিত।
এ ব্যাপারে ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) চান মিয়া বলেন, সেবাই পুলিশের ধর্ম’ সেবা দিয়েই মানুষের মন জয় করতে হয়। কেউ চিরকাল বেঁচে থাকে না। বেঁচে থাকে তার স্মৃতি। এজন্য দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছি। মানবিক ও জনবান্ধব পুলিশ হিসেবে জনগণের পাশে দাঁড়াতে সর্বদা চেষ্টা করেছি।
উল্লেখ্য, বিগত ২০১৯ সালের (২৯ নভেম্বর) তিনি ধনবাড়ী থানায় যোগদান করেন।

 

ব্রেকিং নিউজঃ