ধনবাড়ীতে সচিবকে লাঞ্ছিত করার অভিযোগে ইউপি সদস্য আটক

80

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলার মুশুদ্দি ইউনিয়ন পরিষদের মহিলা ইউপি সচিবকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার দায়ে এক ইউপি সদস্যকে আটক করেছে থানা পুলিশ। লাঞ্ছিত করার সময় আরও আহত হয়েছে দুই মহিলা গ্রাম পুলিশ সদস্য।




বৃহস্পতিবার (২২ ডিসেম্বর) দুপুরে ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের কক্ষে তাঁর উপস্থিতিতে এ ন্যাক্কারজনক ঘটনা ঘটে। থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের হলে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য ও ১ নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি তোফাজ্জল হোসেন তুলাকে আটক করেছে থানা পুলিশ। বিষয়টি জানাজানি হলে উপজেলাজুড়ে সমালোচনা সৃষ্টি হয়েছে। শারীরিকভাবে লাঞ্ছনার সময় উপস্থিত ছিলেন ইউপি চেয়ারম্যান, একাধিক ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশের সদস্যরা।




ওই ইউপি সচিব জানান, চেয়ারম্যানের সঙ্গে তাঁর কক্ষে আলোচনা চলছিল। এ সময় একাধিক ইউপি সদস্য ও গ্রাম পুলিশের সদস্যরা উপস্থিত ছিলেন। কথা বলার একপর্যায়ে তুলা মেম্বার ক্ষিপ্ত হয়ে অতর্কিতভাবে আমার উপর হামলা করে কিল-ঘুষি মারতে-মারতে বাইরে আনে। তাঁকে বাঁধা দিলে রহিমা খাতুন ও পারুল আক্তার নামের দুই গ্রাম পুলিশ সদস্যদেরও আহত করে সে।
তিনি আরও বলেন, অন্য ইউপি সদস্যরা আমাকে এ সময় উদ্ধার করে। বিষয়টি স্থানীয় প্রশাসনকে জানানো হয়। তুলা মেম্বার বিভিন্ন সময় আমাকে কু-প্রস্তাব দিয়ে আসছিল। রাজি না হওয়ায় আমার উপর ক্ষিপ্ত সে। সঠিক বিচার চাই।




বিষয়টি অস্বীকার করে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য বলেন, সচিব আগে আমাকে থাপ্পর মেরেছে। আমি তাকে শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করেনি।
শারীরিকভাবে লাঞ্ছিত করার ঘটনা সত্যতা স্বীকার করে মুশুদ্দি ইউপি চেয়ারম্যান আবু কাউসার।
ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জসিম উদ্দিন বলেন, অভিযোগ পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে ওই ইউপি সদস্যকে আটক করা হয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনি ব্যবস্থা নেয়ো হবে।
ধনবাড়ীর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আসলাম হোসাইন বলেন, সংবাদ পেয়ে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রয়েছে।

 

ব্রেকিং নিউজঃ