ধনবাড়ীতে ধানের ভাল ফলনে কৃষকের স্বস্তি

67

স্টাফ রিপোর্টার ॥
এ বছর আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় টাঙ্গাইলের ধনবাড়ী উপজেলার ধানের ফলন ভাল হয়েছে। বন্যা কবলিত এলাকাগুলোতেও হয়েছে ভাল ফলন। ভাল ফলনে কৃষকের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে। ধানের খড়গুলোও বিক্রি হচ্ছে মোটা দামে। কৃষক অতিরিক্ত আয়ের জন্য দুই ফসলী জমিতে আবাদ করছেন তিন ফসলের। সব মিলিয়ে ব্যস্ত সময় কাটছে কৃষকদের।
উপজেলা কৃষি বিভাগ টিনিউজকে জানান, এবার ৯ হাজার ৫শত হেক্টর জমিতে উন্নত ধানের জাতসহ দেশীয় জাতের ধান চাষ হয়েছে। ফসল চাষে কৃষকদের দেয়া হচ্ছে পরামর্শ। কৃষকদের ক্ষতি পুশিয়ে নিতে সরকারীভাবে দিচ্ছে নানা প্রণোদনা।
সরেজমিনে দেখা গেছে, কৃষকরা ইতিমধ্যে তাঁদের উৎপাদিত ধান কাটতে শুরু করেছে। সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত কৃষক-কৃষাণীরা ধান কাটা ও মাড়াইয়ে ব্যস্ত। উপজেলার নিম্নাঞ্চল মুশুদ্দি, বলিভদ্র, বীরতারা ও পাইস্কাতেও হয়েছে ধানের বাম্পার ফলন। বেশির ভাগ জমিতেই চাষ করা হয়েছে উন্নত জাতের ধান। বিঘা প্রতি উৎপাদন হয়েছে ২২ থেকে ২৫ মণ। উপজেলায় বিগত কয়েক বছরে গবাদি পশু পালন বেড়ে যাওয়ার প্রতি বিঘা ধানের খড় বিক্রি হচ্ছে সাড়ে তিন থেকে চার হাজার টাকায়। এছাড়াও দেখা গেছে দুই ফসলি জমিতে অতিরিক্ত অর্থ আয়ের জন্য সবজি চাষ করে তিন ফসলি জমি করা হয়েছে। বাজারে সবজির ভালো দাম থাকায় ধান কাটার পরপরই লাগনো হচ্ছে বিভিন্ন জাতের সবজি।
উপজেলার মুশুদ্দি গ্রামের কৃষক মিজানুর রহমান শিবলী টিনিউজকে জানান, আমি আমার দুই ফসলির জমিকে তিন ফসলিতে রুপান্তর করেছি। এই পদ্ধতি এখন উপজেলার অনেক কৃষকরাই গ্রহণ করছে। রোপা আমনের পরপরই জমি প্রস্তুত করে অল্প সময়ে আসা বিভিন্ন জাতের সবজি চাষ করা হচ্ছে যাতে করে বোরো আবাদে বিঘœ না হয়। কয়ড়া এলাকার কৃষক আবু বকর টিনিউজকে জানান, এ বছর আমি তিন বিঘা জমিতে উন্নত জাতের ধান চাষ করেছি। ফলনও খুবই ভালো হয়েছে। বাজারে প্রতিমন ধান ৮ থেকে ৯ শত টাকা দরে বিক্রি করা যাচ্ছে। ধানের খড় বিঘা প্রতি সাড়ে তিন থেকে চার হাজার টাকায় বিক্রি হচ্ছে। বীরতারা এলাকার কৃষক আবুল হোসেন টিনিউজকে বলেন, ধান কাটার সাথে সাথেই জমিতে নানা জাতের শাক-সবজি লাগিয়েছি। প্রতিদিনই তা বাজারে বিক্রি করে অতিরিক্ত রোজগারও হচ্ছে। এতে যে টাকা আয় হচ্ছে তা সংসারে ছেলেমেয়েদের পড়াশোনার কাজে ব্যয় করা যাচ্ছে।
এ বিষয়ে ধনবাড়ী উপজেলা উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শফিকুল ইসলাম টিনিউজকে জানান, যে কোন ফসল সঠিকভাবে চাষ করতে মাঠে যেয়ে কৃষকদের ভালো ফলনে পরামর্শ দেয়া হচ্ছে। যে সকল জমিতে তিন ফসল চাষ করা যায় এজন্য নানা ধরনের পরামর্শও দেয়া হচ্ছে।
এ ব্যাপারে ধনবাড়ী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিধ মাজেদুল ইসলাম টিনিউজকে বলেন, আমরা মাঠে গিয়ে কৃষকদের নানা ধরনের সেবা প্রদান করছি। কোন ফসল কখন চাষ করতে হবে কৃষকদের জানাচ্ছি। এবার ধানের ভাল ফলন হয়েছে। কৃষকদের সরকারীভাবে প্রণোদনার মাধ্যমে সহযোগিতাও করা হচ্ছে।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ