ধনবাড়ীতে চাচার দায়ের কোপে মৃত্যুর সাথে লড়ছে ভাতিজা

99

ধনবাড়ী প্রতিনিধি ॥
টাঙ্গাইলের ধনবাড়ীতে ভাতিজাকে দা দিয়ে কুপিয়ে হত্যা চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে চাচার বিরুদ্ধে। রোববার (২৯ জানুয়ারি) ধনবাড়ী উপজেলা হাসপাতলে গিয়ে দেখা গেছে, মাথায় ও হাতে গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত ভাতিজা ওয়াজ কুরুনী (২৫) মৃত্যুর সাথে লড়ছে।




শনিবার (২৮ জানুয়ারি) বেলা ১২টায় ধোপাখালী ইউনিয়নের মঠবাড়ী (ডিলারপাড়া) গ্রামের ঘটনা। ওইদিন সন্ধ্যায় ধনবাড়ী থানায় অভিযোগ দায়ের করে ভুক্তভোগী পরিবার। ওয়াজ কুরুনী ওই গ্রামের আফজাল হেসেনের ছেলে এবং অভিযুক্ত চাচা হুমায়ূন কবীর (৩৫), মৃত. আনোয়ার হোসেনের ছেলে।




স্থানীয়রা জানান, হুমায়ূনের মেয়ে ও ওয়াজ কুরুনীর ছোট ভাই একই স্কুলের শিক্ষার্থী। ছেলেটির সঙ্গে প্রেমে ব্যর্থ হয় মেয়েটি। এনিয়ে বন্ধুদের কাছে নানা সমালোচনা শুরু করে সে। বিষয়টি মিমাংসায় শনিবার সকালে তাদের বাড়িতে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান উপস্থিত থাকলেও হুমায়ূন গা’ঢাকা দেন। পরে হুমায়ূন বাড়িতে এসে ওয়াজ কুরুনীর ছোট ভাইকে না পেয়ে ওয়াজ কুরুনীকে দা দিয়ে মাথায় কোপায় ও হাত ভেঙে দেয়।




ওয়াজ কুরুনীর পিতা আফজাল হোসেনের বলেন, ‘হুমায়ূনের মেয়ে ছোট ছেলে আসাদুলকে মোবাইলে বিরক্ত করলে ছেলেকে সতর্ক করি। এরআগে হুমায়ূন আমার স্ত্রীকে পিটিয়ে আহত করে।’
হুমায়ূনের স্ত্রী বিলকিস আক্তার বলেন, আমার স্বামী প্রতিবাদ করলে তাকে মারতে আসে। আমার স্বামীর লাঠির আঘাতে ওয়াজ কুরুনীর মাথা ফেটে যায় এবং হাত ভেঙে গেছে। হুমায়ূনের সঙ্গে যোগাযোগ করলে তিনি সাংবাদিকদের মেনেজ করার চেষ্টা করেন।




ধোপাখালী ইউপি চেয়ারম্যান আকবর হোসেনের মোবাইলে একাধিকবার চেষ্টা করে তাকে পাওয়া যায়নি।
ধনবাড়ী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এইচএম জসিম উদ্দিন বলেন, ‘ভুক্তভোগী পরিবার মৌখিক অভিযোগ দিয়েছে, আইনি সহযোগিতা চাইলে দেয়া হবে।’

Comments are closed.

ব্রেকিং নিউজঃ