দেলদুয়ারে ড্রেজার দিয়ে অবৈধভাবে বালু উত্তোলনে ভাঙ্গন ॥ রাস্তাসহ বাড়িঘর নদীগর্ভে

165

Tangail Pic-(1)- 03-11-15স্টাফ রিপোর্টারঃ
বর্ষা মৌসুম এখন শেষ। নদীর পানিও এখন কমে যাচ্ছে। তারপরও হঠাৎ ভাঙ্গনে নদীর দু’পাশের ফসলী জমি, রাস্তা ও বাড়িঘর বিলীন হয়ে যাচ্ছে নদীগর্ভে। কারন নদীর বিভিন্ন জায়গায় অবৈধভাবে বসানো হয়েছে ড্রেজার মেশিন। রাজনৈতিক নেতা নামধারী একটি অসাধু চক্র এসব ড্রেজার মেশিনের মাধ্যমে বালু উত্তোলন করে প্রতি বছর কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। প্রশাসনের পক্ষ থেকে কোন ভাবেই বন্ধ হচ্ছে না অবৈধ্যভাবে ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন।
টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার উপর দিয়ে প্রবাহিত লৌহজং, এলেংজানী ও ধলেশ্বরী নদীর বিভিন্ন জায়গা ঘুরে দেখা গেছে এ সব চিত্র। বালু উত্তোলনকারীরা প্রভাবশালী হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে কেউ কথা বলতে সাহস পায় না। সম্প্রতি শাহধারীপাড়া-মৈষ্টা সড়কটির বিভিন্ন জায়গা ভেঙ্গে গভীর খাদের সৃষ্টি হয়ে আশেপাশের প্রায় ২০টি বাড়িঘর এবং একটি গুরুত্বপূর্ণ সড়ক নদীগর্ভে বিলীন হওয়ায় স্থানীয় এলাকাবাসীর মধ্যে ব্যাপক আতঙ্কের সৃষ্টি হয়েছে। শাহধারীপাড়া, এলাচিপুর, কামান্না, আরমৈষ্টা, ধানকী, কুমারজানীসহ আশেপাশের কয়েকটি গ্রামের মানুষ উপজেলা সদর এবং পার্শ্ববর্তী মির্জাপুুর উপজেলায় যাতায়াতের একমাত্র মাধ্যম এই সড়কটি। তাছাড়া শাহধারীপাড়া সহ আশেপাশের এলাকায় স্কুল, মাদ্রাসাসহ বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। প্রতিদিন ছাত্র-ছাত্রীরা এই রাস্তা দিয়ে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যাতায়াত করে।
শাহধারীপাড়া গ্রামের নুরুল ইসলাম (৬০) বলেন, রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ায় চলাচলে আমাদের খুবই অসুবিধা হচ্ছে। পাশের জমির উপর দিয়ে চললেও ফসল লাগালে তা বন্ধ করে দেয়া হবে। ফলে  খুবই সমস্যায় পড়তে হবে আমাদের। এসব অবৈধ ড্রেজার মেশিন দিয়ে বালু উত্তোলন বন্ধ করে বাড়িঘর, ফসলী জমি ও রাস্তাঘাট রক্ষার্থে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি কামনা করেন নদীপাড়ে বসবাসরত মানুষেরা।
দেলদুয়ার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম ফেরদৌস আহমেদ, উপজেলা নির্বাহী প্রকৌশলী খ.ম ফরহাদ হোসাইনসহ বিভিন্ন পর্যায়ের জনপ্রতিনিধিরা ক্ষতিগ্রস্থ এলাকা পরিদর্শন করেছেন। রাস্তাটি স্থানীয় সরকার ও প্রকৌশল বিভাগের অধীনে হওয়ায় উপজেলা প্রকৌশলী খ.ম ফরহাদ হোসাইন বলেন, আমি সরজমিন রাস্তাটি দেখেছি। সংশ্লিষ্টদের সাথে কথা বলে আবশ্যই ব্যবস্থা নিব। দেলদুয়ার উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এসএম ফেরদৌস আহমেদ বলেন, রাস্তাটি ভেঙ্গে যাওয়ায় এলাকাবাসীকে খুবই দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। তাছাড়া অনেক বাড়িঘর নদীতে বিলীন হয়ে গেছে। এ ব্যাপারে উপজেলা পরিষদের পক্ষ থেকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও তিনি জানান।

ব্রেকিং নিউজঃ