দেলদুয়ারে ছাত্রলীগ সভাপতিকে ছাত্রদল নেতা বানানোর অভিযোগ

161

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলের দেলদুয়ার উপজেলার এলাসিন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ছাত্রলীগ সভাপতি মোহাম্মদ আলীকে ছাত্রদল নেতা সাজানোর অপচেষ্টা চালানোর অভিযোগ উঠেছে। আগামি (৮ ফেব্রুয়ারি) আয়োজিত দেলদুয়ার উপজেলার এলাসিন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে ঘটনাটি ঘটেছে। সম্মেলনে মোহাম্মদ আলী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হওয়ায় এ ধরণের অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বলে দাবি উপজেলা ও ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীদের।
জানা যায়, আগামি (৮ ফেব্রুয়ারি) দেলদুয়ার উপজেলার এলাসিন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন। সম্মেলনের দিন ধার্য হওয়ার পর থেকেই শুরু হয়েছে সভাপতি-সম্পাদক জোর লবিং আর গ্রুপিং। ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হয়েছেন মোহাম্মদ আলী। তিনি ওই ইউনিয়নের সানবাড়ি গ্রামের মরহুম তারাব আলী মাতাব্বরের ছেলে।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী মোহাম্মদ আলীর অভিযোগ, ইতোপূর্বে আমি এ ইউনিয়নের ছাত্রলীগ, যুবলীগ আর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি দায়িত্ব পালন করেছি। এছাড়াও আমি বিগত ২০০৬ থেকে ২০০৯ সাল পর্যন্ত এই ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতির দায়িত্ব পালন করি। আসন্ন সম্মেলনে সাধারণ সম্পাদক প্রার্থী হয়েছি। প্রার্থী হওয়ায় আমার প্রতিদ্বন্দ্বি প্রার্থীরা আমাকে বিএনপিকর্মী সাজানোসহ নানা ধরণের ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছেন। সেই ষড়যন্ত্রে তারা আমার বাবাকে শান্তি কমিটির সদস্য বানানোর মতেরও অপচেষ্টা চালাচ্ছেন। তবে উপস্থাপিত প্রতিটি অভিযোগই ভিত্তিহীন আর উদ্দেশ্য প্রণোদিত।
এলাসিন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক শাহিনুর রহমান তালুকদার টিনিউজকে বলেন, আসন্ন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির বর্তমান যুগ্ম-আহ্বায়ক মোহাম্মদ আলী। ইতিপূর্বেও সে এই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি দায়িত্ব পালন করেছেন।
তৎকালিন দেলদুয়ার উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি এস.এম এহ্সানুল হক সুমন টিনিউজকে বলেন, বিগত ২০০৬ সালে অনুষ্ঠিত এলাসিন ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সম্মেলনে সভাপতি নির্বাচিত হন সাক্কু নামের এক কর্মী। কিছুদিনের মধ্যেই দলীয় কর্মকান্ড বাদ রেখে বিদেশে পাড়ি জমান ওই ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি সাক্কু। এরপরও দলীয় ওই পদটির দায়িত্ব পালন করতে মোহাম্মদ আলী ভারপ্রাপ্ত সভাপতি বানানো হয়। দলীয় পদটি গ্রহণের জন্য মোহাম্মদ আলীকে একটি প্রত্যায়নপত্রও দেয়া হয় বলেও জানান তিনি।
দেলদুয়ার উপজেলা মুক্তিযোদ্ধার সাবেক ডেপুটি কমান্ডার বীরমুক্তিযোদ্ধা ফরহাদ আলী খান টিনিউজকে বলেন, এলাসিন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সম্মেলনকে কেন্দ্র করে নানা ধরণের অপপ্রচার চলছে। ওই ইউনিয়নের মরহুম তোরাব আলী মাতাব্বর শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন কিনা সেটিও জানেন তিনি।
দেলদুয়ার উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীরমুক্তিযোদ্ধা ফজলুল হক টিনিউজকে বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ আওয়ামী লীগের রাজনীতিতে জড়িত মোহাম্মদ আলী। সে কখনও বিএনপি বা এর অঙ্গসংগঠণের রাজনীতিতে জড়িত ছিল না। এছাড়াও মোহাম্মদ আলীর বাবা মরহুম তোরাব আলী মাতাব্বর বিগত ১৯৬৯ থেকে ১৯৭৩ সাল পর্যন্ত এলাসিন ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাকালীন কমিটির সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করেন। তবে তিনি ৭১ সালে শান্তি কমিটির সদস্য ছিলেন এমন তথ্য তার জানা নেই।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ