ঢাকা-টাঙ্গাইল-বঙ্গবন্ধু মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক

65

স্টাফ রিপোর্টার ॥
ঢাকা-টাঙ্গাইল ও বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক। বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) ভোরে বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কের তিনটি স্থানে গাড়ি বিকল হওয়ার কারণে বঙ্গবন্ধু সেতু পূর্ব প্রান্ত থেকে রাবনা বাইপাস পর্যন্ত ২১ কিলোমিটার এলাকা জোড়ে যানজটের সৃষ্টি হয়েছিল। এতে করে ঈদ যাত্রায় ভোগান্তিতে পড়তে হয়েছিল ঘরমুখো মানুষদের। বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) সন্ধ্যায় এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত মহাসড়কে যান চলাচল স্বাভাবিক ভাবেই করে তবে গাড়ির চাপ রয়েছে।

পুলিশ জানায়, মহাসড়কে এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত দুই লেনের সড়ক একমুখী (ওয়ানওয়ে) করে দেওয়া হয়েছে। ঢাকা থেকে উত্তরবঙ্গগামী যানবাহন এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতুর দিকে যাচ্ছে। অপরদিকে উত্তরবঙ্গ থেকে ঢাকামুখী যানবাহন সেতু পার হয়ে ভূঞাপুর লিংক রোড ব্যবহার করে এলেঙ্গা পর্যন্ত আসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। মহাসড়কের ওই অংশটুকু সাধারণ যানবাহনের জন্য একমুখী করা হয়েছে। তবে উত্তরবঙ্গ থেকে গরুবাহী ট্রাক সরাসরি এলেঙ্গা হয়ে ঢাকা যাচ্ছে।

টাঙ্গাইলের ট্রাফিক পরিদর্শক এরশাজুল হক জানান, এলেঙ্গা থেকে বঙ্গবন্ধু সেতু পর্যন্ত দুই লেনে যানবাহন ঢুকতে গিয়ে বাধার মুখে পড়ছে। চারলেনে গাড়ি ৬০-৭০ কিলোমিটার গতিতে এসে এক লেনে যেতে হচ্ছে। এখানে কিছুক্ষণ আটকে থাকায় পেছনে যানবাহনে ও দীর্ঘ সাড়ি হচ্ছে। এতে করে ৮-১০ কিলোমিটার রাস্তায় ধীর গতিতে যানবাহন চলছে। তবে কোন যানজট নেই। তাছাড়া কোন যানজট ছাড়াই গরুবাহী ট্রাক ঢাকায় যাচ্ছে।

টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার জানান, গত ঈদের ন্যায় এবারও যানজট মুক্ত মহাসড়ক উপহার দেওয়ার লক্ষে ব্যাপক পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। উত্তরাঞ্চল থেকে ছেড়ে আসা ঢাকাগামী যাত্রীবাহী বাস সেতুর পূর্বপাপ্রান্ত গোলচত্তর থেকে গোবিন্দাসী এবং ভূঞাপুর হয়ে এলেঙ্গা চার লেনে এসে উঠছে। আর উত্তরাঞ্চল থেকে আসা গরুবাহী যানবাহন মহাসড়ক দিয়ে সরসরি ঢাকা যাচ্ছে। পুলিশ সুপার আরও জানান, গত ঈদের মতো এই ঈদেও যেন মহাসড়কে যানজট না হয় সেজন্য ৬২০ জন পুলিশ মোতায়েন রয়েছে। এছাড়াও ১০০ জন এপিবিএন সদস্য দায়িত্ব পালন করছে। দূর্ঘটনা কবলিত যানবাহন দ্রুত সরিয়ে ফেলা যায় এজন্য ৪টি রেকার প্রস্তুত রয়েছে। মহাসড়ক পর্যবেক্ষণের জন্য স্থাপন করা হয়েছে ওয়াচ টাওয়ার।

 

ব্রেকিং নিউজঃ