টিনিউজে সংবাদ প্রকাশের পর চরপৌলীতে ড্রেজার মেশিন ও পাইপ ধ্বংস

85

জাহিদ হাসান ॥
‘টাঙ্গাইলে নদীতে ড্রেজার দিয়ে অবাধে চলছে বালু উত্তোলনের মহোৎসব’ এই শিরোনামে গত সোমবার (১০ অক্টোবর) টাঙ্গাইলের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল টিনিউজবিডি.কম এ সংবাদ প্রকাশের পর স্থানীয় প্রশাসনের নজরে আসে। এর প্রেক্ষিতে মঙ্গলবার (১৩ অক্টোবর) দুপুরে সদর উপজেলার চরপৌলী এলাকায় ভ্রাম্যমান আদালত পরিচালনা করা হয়। সহকারি কমিশনার (ভূমি) খাইরুল ইসলাম এই অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় ভ্রাম্যমান আদালত ৬টি অবৈধ ড্রেজার মেশিন ও সাত হাজার ফুট পাইপ ধ্বংস করেন।
উল্লেখ্য, সদর উপজেলার কাকুয়া ইউনিয়নের চরেপৌলী এলাকার কতিপয় প্রভাবশালী ব্যক্তি ক্ষমতার অপব্যবহার করে অবৈধভাবে ধলেশ্বরী নদী থেকে অবাধে মাটি উত্তোলন করছিল। ধলেশ্বরী নদী থেকে ড্রেজার দিয়ে অবাধে মাটি উত্তোলন করে প্রতিদিন প্রায় জায়গা ভরাট করা হচ্ছিল। এ নদী থেকে বিগত দিনগুলোতে মাটি উত্তোলনের ফলে নদীর পাড়ে মসজিদ, মাদ্রাসা নদী গর্ভে বিলীন হয়ে গেছে।
প্রায় সারা বছর ধরেই কোন না কোন প্রভাবশালী মহল এ নদী থেকে প্রতিনিয়ত মাটি উত্তোলন করে আসছিল। এ নদী থেকে প্রতি বছর প্রভাবশালী একটি মহল অবৈধভাবে মাটি উত্তোলন করে যাচ্ছে। ফলে প্রতি বছর বন্যা ও তার পরবর্তী সময়ে ব্যাপক ভাঙ্গন দেখা দিচ্ছে। নদী পাড়ে বসতবাড়ি রয়েছে ঝুঁকির মধ্যে। নদী থেকে অবৈধভাবে মাটি উত্তোলন বন্ধ করার দাবি ছিল এলাকাবাসীর।
চরেপৌলী গ্রামের বাসিন্দা সাইফুল ইসলাম টিনিউজকে জানান, অবৈধ এইসব ড্রেজার মেশিন চলার কারণে আমাদের গ্রামের অনেক ক্ষতি হয়েছে। আজ এইসব মেশিন ধংস করা হল। এতে আমাদের গ্রাম রক্ষা পেল। আমরা আশা করবো আর যেন অবৈধভাবে কেউ বালু উত্তোলন করতে না পারে সেদিকে প্রশাসন নজর রাখবে।
একই গ্রামের শাহাদত হোসেন বলেন, টিনিউজকে ধন্যবাদ। তারা আমাদের এলাকার এই খবর লিখেছে। যার ফলে প্রশাসন আজ এই অবৈধ কাজটি বন্ধ করেছে। ভবিৎষতে আর কেউ যেন এই কাজ করতে সাহস না পায় সেজন্য প্রশাসনকে সব সময় খেয়াল রাখতে হবে। তা না হলে আবার এই অবৈধ বালু ব্যবসায়ীরা বালু তুলে আমাদের গ্রামকে ধ্বংস করে দিবে।

ব্রেকিং নিউজঃ