টাঙ্গাইল মহাসড়কে ডাকাত দলের ৪ সদস্য গ্রেফতার করেছে পিবিআই

270

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলে আন্তঃজেলা ডাকাত দলের ৪ সদস্যকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এ সময় তাদের কাছ থেকে ডাকাতির কাজে ব্যবহৃত ১টি প্রাইভেটকার, লুন্ঠিত টাকা ও মোবাইল ফোন উদ্ধার করা হয়। গ্রেফতাররা যাত্রী সেজে দীর্ঘ দিন ধরে গাবতলী থেকে পাবনা পর্যন্ত ঢাকা-টাঙ্গাইল ও বঙ্গবন্ধু সেতু মহাসড়কে ডাকাতি করে আসছিলেন। বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) দুপুরে তাদের টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো হয়। গ্রেফতারকৃতরা হলো- নেত্রকোনার তেতুলিয়া গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে সোহেল রানা (৩৬), ভোলার ইলিশা গ্রামের মৃত দেলোয়ার হোসেনের ছেলে মিজান (৩৩), মানিকগঞ্জের উত্তরপাড়া গ্রামের মৃত সুলতান ব্যাপারীর ছেলে সাবাস (৩২) এবং নেত্রকোনার বান্নানাল গ্রামের মৃত হয়রত আলীর ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩২)। বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) দুপুরে পিবিআই টাঙ্গাইলের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ সিরাজ আমীন নিজ কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান।
সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, আমাদের কাছে একটি অভিযোগ আসে গত (২২ ডিসেম্বর) মাহতাব হোসেন নামের এক ব্যক্তি সন্ধ্যায় করটিয়া বাসস্ট্যান্ড থেকে বাড়িতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাসের অপেক্ষা করছিল। এ সময় একটি প্রাইভেটকার তার সামনে এসে দাঁড়ালে তিনি ১৫০ টাকায় ভাড়া নির্ধারণ করে প্রাইভেটকার উঠেন। এ সময় আরো দুই যাত্রীবেশী ডাকাত সদস্যকে প্রাইভেটকার এ তুলে। পরে এলেঙ্গা বাসস্ট্যান্ড পার হয়ে নির্জন স্থানে পৌছালে গাড়ির ভেতরে থাকা যাত্রীবেশী ডাকাতা দলের সদস্যরা মাহতাব হোসেনকে হাঁত-পা কাপড় দিয়ে বেঁধে ফেলে। পরে তার দেহ তল্লাসি করে দুটি মোবাইল ও নগদ অর্থ ছিনিয়ে নেয়। পরবর্তীতে তারা মাহতাবকে হত্যার হুমকি দিয়ে পরিবারের কাছ থেকে বিকাশের মাধ্যমে আরো ২৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নেয়।
একই কায়দায় গত (২৪ ডিসেম্বর) প্রাইভেটকারে উঠিয়ে মারধরসহ হত্যা করার ভয় দেখিয়ে পুলিশ ট্রেনিং সেন্টারের পরিদর্শক বেলাল হোসেনের কাছ থেকে নগট ৪৪ হাজার টাকা এবং বিকাশের মাধ্যমে আরো ২০ হাজার টাকা নিয়ে রাস্তার পাশে ফেলে চলে যায়। পরে তথ্য প্রযুক্তি এবং বিভিন্ন সূত্রের মাধ্যমে এ সব ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পৃথক স্থানে অভিযান চালিয়ে ৪ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তারা বিভিন্ন কোড নাম ও কৌশল ব্যবহার করায় তাদের নামে কোন মামলাও হয়নি এর আগে। এ ঘটনায় দেলদুয়ার এবং সদর থানায় পৃথক মামলা দায়ের করা হয়েছে। পরে বুধবার (৩০ ডিসেম্বর) তাদের টাঙ্গাইল আদালতে পাঠানো হয়। তিনি আরো বলেন, এছাড়াও তারা ঢাকা, গাজীপুর, মিরপুরসহ বিভিন্ন এলাকায় যাত্রী বেশে ডাকাতি করে আসছিল।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ