টাঙ্গাইল বঙ্গবন্ধু প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগে ইস্টার্ন স্পোটিং ফাইনালে

124

মোজাম্মেল হক ॥
১৯৩ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে পঞ্চাশ রান পূর্ন হওয়ার আগেই প্রথম সারির ৪ ব্যাটসম্যান আউট হয়ে প্যাভিলিয়নে থাকলে পরাজয়ের শঙ্কা থাকবেই। অথচ ইষ্টার্ন স্পোটিং ক্লাবের উদ্বোধনী তরুন ব্যাটসম্যান আদনান ও লোয়ার ওর্ডার ব্যাটসম্যান সোহেল কিন্তু পরাজয়ের ভয়ে ভীত না হয়ে উইকেটে ধীরে ধীরে শক্ত জুটি গেড়েছেন। তারা ১২২ রানের বিশাল জুটি গড়ে থানাপাড়া ক্লাবের জয়কে বঞ্চিত করে ইস্টার্ন স্পোটিং ক্লাবকে ৪ উইকেটে জয়লাভ করিয়ে ফাইনালে তুলেছেন দলকে।
শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) টাঙ্গাইল স্টেডিয়ামে জেলা ক্রীড়া সংস্থার ক্রিকেট উপ-পরিষদ আয়োজিত বঙ্গবন্ধু প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লীগের ১ম সেমিফাইনালে থানাপাড়া ক্লাব টসে জয়লাভ করে প্রথমে ব্যাটিং করার সিন্ধান্ত গ্রহণ করে। থানাপাড়া ক্লাবের তাসিন ও বিজয়ের চমৎকার ব্যাটিংয়ে ভর করে ৪৯.৪ ওভারে ১০ উইকেট হারিয়ে ১৯২ রান করে। দলের পক্ষে তাসিন সর্বোচ্চ ৬৯, বিজয় ৪২ ও সানি ১৬ রান করে। বোলিংয়ে বিজয়ী ইষ্টার্ন স্পোটিং ক্লাবের পক্ষে আদনান, মুন্না, নাবিল ও আরাফাত প্রত্যেকেই ২টি করে উইকেট দখল করে। ইষ্টার্ন স্পোটিং ক্লাব ১৯৩ রানের জয়ের লক্ষ্যে খেলতে নেমে উদ্বোধনী ব্যাটসম্যান টিপু, অনুর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের টাঙ্গাইলের সাবেক ক্রিকেটার জয়রাজ শেখ ইমন, নাবিল ও সুমনকে হারিয়ে পরাজয়ের শঙ্কায় ধুকছে।
এ সময়ে আদনান ও সোহেল ধৈর্য ধরে উইকেটে থেকে সিঙ্গেলের উপর খেলে ১২২ রানের জুটি গড়লে পরাজয়ের শঙ্কা কেটে জয়ের বন্দর দেখতে পান। ম্যাচের সর্বোচ্চ রান ৭৬ করে অপরাজিত থেকে দলকে জয়লাভ করিয়ে মাঠ ত্যাগ করেছে ২টি ওভার বাউন্ডারী ও ৫টি বাউন্ডারী মারা সোহেল। ম্যাচে ১২২ রানের জুটির অন্য ব্যাটসম্যান তরুন আদনান করেছেন ৬০ রান। বিজিত থানাপাড়া ক্লাবের শাহিন ৪৬ রানের বিনিময়ে ৩টি উইকেট দখল করে। যদিও দুই স্পিনার ইমতিয়াজ ও সানি চমৎকার বোলিংয়ে ১টি করে উইকেট নিলেও দলের পরাজয় রোধ করতে পারেনি।
বিজয়ী ইষ্টার্ন স্পোটিং ক্লাব ২য় সেমিফাইনাল বিজয়ীদের সাথে আগামী বুধবার (১ ডিসেম্বর) ফাইনাল খেলায় অংশগ্রহণ করবে। আগামী রোববার (২৮ নভেম্বর) ২য় সেমিফাইনালে ইয়ং স্পোটিং ক্লাব ফাইনালে উঠার মুখোমুখি হবে প্রগতিশীল স্বদেশী সংঘের।
খেলায় আম্পায়ার ছিলেন- তমাল বিহারী দাস ও আসিফুর রহমান আসিফ এবং স্কোরার- আনিসুর রহমান আলো।

 

ব্রেকিং নিউজঃ