টাঙ্গাইল ও মির্জাপুরে বিএনপি নেতা গয়েশ্বর চন্দ্রের গণসংযোগ

161

1স্টাফ রিপোর্টার/মির্জাপুর প্রতিনিধিঃ
আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনকে অন্যায় নির্যাতন ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে প্রতিবাদ ও সাধারন মানুষের অধিকার প্রতিষ্ঠার নির্বাচন বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য  গয়েশ্বর চন্দ্র রায়। শুক্রবার বিকেলে টাঙ্গাইল নতুন বাস টার্মিনালে নির্বাচনী পথসভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। এ সময় গয়শ্বর চন্দ্র রায় বলেন, পৌরসভার নির্বাচন কোন সাধারণ নির্বাচন নয়। জনগনের ভোট যাতে কেউ ছিনিয়ে নিতে না পারে সেজন্য ভোট কেন্দ্র পাহারা দিতে হবে। সরকার যদি ভোটের উপর হাত দেয় আর ভোট ছিনিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে তাহলে ৩০ ডিসেম্বরের পর থেকে শুরু হবে এই সরকারের পতন আন্দোলন। তিনি আরো বলেন, এতদিন জঙ্গিবাদের ধোয়া তুলে চিৎকার করলেও এখন বলছে দেশে কোনো জঙ্গিবাদ নাই। দেশে গনতন্ত্র ফিরিয়ে আনতে পৌরসভা নির্বাচনে ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দেয়ার আহবান জানান।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা বিএনপির সভাপতি এডভোকেট আহম্মেদ আযম খান ও সাধারণ সম্পাদক শামছুল আলম তোফাসহ দলের কেন্দ্রিয় ও স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
শুক্রবার এগারটায় মির্জাপুর উপজেলা সদরের দলীয় কার্যালয়ে নির্বাচন উপলক্ষে স্থানীয় বিএনপির নেতাকর্মীদের সাথে আলোচনা সভায় একথা বলেন। এ সময় বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেছেন, সরকার দেশ ও বিদেশীদের কাছে ৫ জানুয়ারির নির্বাচন নিয়ে সমালোচনায় পড়েছেন। আসন্ন পৌরসভা নির্বাচনে সরকার দলের প্রার্থীরা পরাজিত হলে বিশ্ববাসীর কাছে প্রমাণিত হবে তাদের প্রতি জনসমর্থন নেই। এ কারণে সরকার দলীয় প্রতীকে স্থানীয় নির্বাচনের প্রক্রিয়া শুরু করেছেন। তিনি বলেন, ৩০ ডিসেম্বর ভোটারদের কেন্দ্রে যাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করতে হবে। ভোটাররা কেন্দ্রে গিয়ে ভোট প্রদান ও ফেয়ার নির্বাচন হলে দেশের ৮০ ভাগ পৌরসভায় বিএনপির প্রার্থীরা জয়ী হবেন।
পৌর বিএনপির সভাপতি মির্জাপুর পৌরসভায় মেয়র প্রার্থী হযরত আলী মিঞার সভাপতিত্বে আরো বক্তৃতা করেন বিএনপির যুগ্ম মহাসচিব শাজাহান, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট আব্দুস সালাম আজাদ, মির্জাপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি সাবেক সাংসদ আবুল কালাম আজাদ সিদ্দিকী।
এ সময় উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক তারিকুল ইসলাম নয়া, সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট আব্দুর রউফ, আব্দুল কাদের শিকদার, সাংগঠনিক সম্পাদক ডিএম শফিকুল ইসলাম ফরিদ, পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক জুলহাস মিয়া, উপজেলা ছাত্রদলের সাবেক সাধারণ সম্পাদক এসএম মহসীন, উপজেলা মহিলা দলের সভাপতি সপ্না সিদ্দিকী সহ নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।
গয়েশ্বর বলেন, এটি ব্যক্তি নির্বাচন নয়। ধানের শীষের নির্বাচন। যদি কোন নেতা মনে করেন প্রার্থীকে এ নির্বাচনে ফেলে দিবো। তাহলে দলের মারাতœক ক্ষতি হবে। নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে ধানের শীষ প্রতীকের জন্য ভোটারদের দ্বারে দ্বারে গিয়ে ভোট প্রার্থণা করতে হবে। এটা সরকার পরিবর্তনের নির্বাচন নয়। এ নির্বাচনে সরকার পরিবর্তন হবে না। তাই জনগণ ধানের শীষ মার্কায় ভোট দিবে। বিএনপির যারা এ নির্বাচনে মেয়র পদে নির্বাচিত হবেন তাদের অধিকাংশ ব্যক্তিকেই নির্বাচনের ৬/৭ মাস পর জেলে যেতে হবে। এটা বিশ্বাস করেই জনগণের জন্য দল নির্বাচনে অংশ নিয়েছেন। সরকার একটা অবৈধ কর্মকে চাপা দিতে দশটি অপকর্ম করার চেষ্টা করবে। তাই নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে নির্বাচন করতে হবে।
পরে বিএনপির প্রার্থী হযরত আলী মিঞার পক্ষে নেতাকর্মীদের নিয়ে সদরের বংশাই রোডে নির্বাচনী প্রচারণা চালান।

ব্রেকিং নিউজঃ