টাঙ্গাইলে ১৮ দিনেও পুনাক মেলা জমে উঠেনি

122

হাসান সিকদার ॥
সুসজ্জিত তোরণ, দৃষ্টিনন্দন পানির ফোয়ারা আর নজরকাড়া আলোকসজ্জায় সাজানো হয়েছে টাঙ্গাইল পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতির (পুনাক) মাসব্যাপী শিল্প মেলা। কিন্তু ১৮ দিনেও জমে উঠেনি এই মেলা। এ মেলায় তরুণ-তরুণীসহ সকল বয়সের মানুষ ঘুরতে আসছেন। সুবিশাল পরিসরে নান্দনিক সজ্জায় সাজানো হয়েছে পুরো মেলা প্রাঙ্গণ। টাঙ্গাইল পৌর শহরের কালেক্টরেট মাঠে নান্দনিক আদলে সাজানো পানির ফোয়ারা আকৃষ্ট করছে শিল্প ও পণ্য মেলায় আগত দর্শকদের। রকমারি পণ্যে দিয়ে সাজানো হয়েছে দোকানগুলো। তবে নেই কোন ক্রেতা, হতাশায় বিক্রেতারা।




এদিকে দুপুরের পর থেকেই মেলা ও মেলার আশেপাশে বখাটে ও নেশাখোর ছেলেদের আনাগোনা বেশী দেখা যায়। তারা মেলায় ঘুরতে আসা তরুণী ও নারীদের উত্যক্ত করার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার (১৩ নভেম্বর) বিকালে মেলায় স্বপরিবারে ঘুরতে আসেন জামাল উদ্দিন। তিনি দুই মেয়ে নিয়ে এসে মেলায় বখাটেদের বিড়ম্বনা ও উৎপাতের মধ্যে পড়েন। পরে বাধ্য হয়ে তিনি মেলা থেকে চলে যান। ক্ষোভের সাথে জামাল উদ্দিন টিনিউজকে বলেন, মানুষ তাদের পরিবার পরিজন নিয়ে মেলায় আসে ঘুরতে ও বেড়াতে। কিন্তু এখানে বখাটে ও নেশাখোররা মানুষদের উৎপাত করে। তাদের যন্ত্রনায় মেলায় শান্তিমতো বেড়ানো যায় না। অভিযোগ করলেও এ বিষয়ে টাঙ্গাইল সদর থানা পুলিশ কোন পদক্ষেপ নিতে দেখা যায় না। পুলিশী টহল থাকলেও তারা এসব বখাটেরদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থাই নিতে দেখা যায় না। এ বিষয়ে টাঙ্গাইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) মুঠোফোনে একাধিকবার কল করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।




মেলা চত্বরে শিশুদের বিনোদনের জন্য অনেকগুলো রাইডস আকৃষ্ট করছে মেলায় আগত শিশুদের। নাগরদোলা, নৌকা, ট্রয় ট্রেন প্রতিটি রাইডসে চড়ে খুশি তারা। শতাধিক স্টল দিয়ে সাজানো মাসব্যাপী এ মেলা। প্রতিদিন সকাল থেকে রাত পর্যন্ত নানা বয়সি মানুষ ঘুরতে আসছেন মেলায়।
দর্শনার্থীরা টিনিউজকে জানান, এ রকম বড় মেলা টাঙ্গাইলে কখনও হয়নি। পুনাক মেলায় এসে অনেক ভালো লেগেছে। মেলায় মোটামোটি সব ধরনের পণ্য পাওয়া যাচ্ছে। পণ্যগুলোর দাম অনেক বেশি। যদি পণ্যগুলোর দাম কম হতো ক্রেতারা বেশি পণ্য ক্রয় করতে পারতো। তাদের দাবি আয়োজকদের কাছে এ রকম মেলার প্রতি বছর আয়োজন করা হোক।




কয়েকজন বিক্রেরা টিনিউজকে জানান, তাদের ভিটি ভাড়া অনেক বেশি। সব কিছুর দামও বেশি আগের তুলনায় পণ্যগুলোর দাম বেশি নিতে হচ্ছে। যদি জিনিস পত্রের দাম কম হতো তাহলে তারা বিক্রিও বেশি করতে পারতো। চাঁদপুর জেলার মতলব উপজেলার বিক্রেতা জমিস মিয়া টিনিউজকে বলেন, মেলায় ভিটি ভাড়া অনেক বেশি। লোকজন হলেও বেচাকেনা কম। মানুষ কেনাকাটা কম করে। এরকম বেচাকেনা হলে আমাদের লস হবে। বিক্রেতা রাকিব হোসেন টিনিউজকে বলেন, মেলায় বেচাকেনা তেমন নেই। কর্মচারী খরচ ও তিনবেলা খাবারের খরচ সব মিলে আমাদের সে রকম বিক্রি হচ্ছে না। এভাবে বেচাকেনা হলে আমাদের আরও ক্ষতির মুখে পরতে হবে। আরেক বিক্রেতা আহাত মিয়া টিনিউজকে বলেন, মেলায় বেচাকেনা ভালো না। মানুষ কেনাকাটা কম করে। সবাই ঘুতে আসে কেউ কিনতে আসে না। আমাদের প্রতিদিন খরচ অনুযায়ী বিক্রি তেমন হচ্ছে না। এরকম বেচাকেনা হলে লাভ তো দূরের কথা আমাদের আরও লুকসান হবে।




দর্শনার্থী ফরিদুল আলম টিনিউজকে বলেন, আমাদের টাঙ্গাইলে ভালো কোনো পর্যটন বা ঘোরার তেমন কোনো ভালো জায়গা নেই। বিশেষ করে শিশুদের জন্য। মেলায় শিশুদের জন্য রাইডসগুলো বেশ সুন্দর। শিশুরা চড়ে অনেক আনন্দ পাচ্ছে। মেলায় ঘুরতে আসা শিশু জান্নাতুল মায়দা টিনিউজকে বলেন, মেলায় অনেক ভাল লেগেছে। অনেকগুলো রাইডসে উঠেছি। আগে আর এ ধরনের রাইড কখনো আসেনি। দর্শনার্থী লোকমান তালুকদার টিনিউজকে বলেন, মেলায় টিকিটের মূল্যটা বেশি হয়ে গেছে। ২০ টাকার পরিবর্তে ১০ টাকা করলে লোকজন মেলায় আরও বেশি আসতো। মেলায় পণ্যের দাম দেড়গুণ। বিশেষ করে খাবারের দাম আরও বেশি। কলেজ পড়–য়া ছাত্রী সাইমা আক্তা সাদিয়া টিনিউজকে বলেন, মাসব্যাপী পুনাকের এ মেলায় এসে আমার খুব ভাল লেগেছে। আমি আমার বান্ধুবীদের নিয়ে মেলায় ঘুরতে এসেছি। মেলায় অনেক নতুনত্ব পণ্য রয়েছে। আবার আসবো পরিবার নিয়ে ঘুরতে। এরকম আয়োজন প্রতি বছর করা হোক। তৃতীয় শ্রেণীর ছাত্র মোহাদ্দিস সিকদার আস সামি টিনিউজকে বলেন, আমার আব্বু-আম্মুর সাথে মেলায় ঘুরতে এসেছি। আমি রাইডসে উঠেছি, ট্রেনে উঠেছি অনেক ভালো লেগেছে। রাবেয়া খাতুন টিনিউজকে বলেন, মেলায় পরিবার নিয়ে ঘুরতে এসেছি অনেক ভালো লেগেছে। মেলায় নানা রকমের দোকান বসেছে। তবে পণ্যগুলোর দাম অনেক বেশি। সে জন্য কেনকাটা করা হয়নি।




পুনাক মেলার আয়োজক কমিটির ম্যানেজার আব্দুস সালাম টিনিউজকে বলেন, মেলা পুরোপুরি এখন জমে উঠে নাই। এইচএসসি পরীক্ষার জন্য প্রচার-প্রচারণা তেমনি করা হয়নি। পরীক্ষা শেষ হলে প্রচার-প্রচারণা আরও ভালো করে করা হবে। আশা করি তখন মেলায় আরও লোকজন বাড়বে। এ মেলা দেড় মাস চলবে বলেও তিনি জানান।




গত (২৮ অক্টোবর) টাঙ্গাইল পৌর শহরের কালেক্টরেট মাঠে পুলিশ নারী কল্যাণ সমিতির (পুনাক) উদ্যোগে শিল্প ও পণ্য মেলা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ফজলুর রহমান খান ফারুক উদ্বোধন করেন।

 

ব্রেকিং নিউজঃ