টাঙ্গাইলে হেযবুত তওহীদের মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠিত

79

স্টাফ রিপোর্টার।।
টাঙ্গাইলের মধুপুরে উগ্রবাদী গোষ্ঠী ধমীয় উন্মাদনা সৃষ্টি করে শুক্রবার (৯ ডিসেম্বর) বাদজুম’আ বাড়িঘর ভাংচুর, লুটপাট ও জ্বালাও-পোড়াও করার আশঙ্কায় গণমাধ্যমকে অবহিত করতে হেযবুত তওহীদের মিট দ্য প্রেস অনুষ্ঠিত হয়েছে।
টাঙ্গাইল শহরের নিরালা মোড়ের একটি অভিজাত হোটেলে বৃহস্পতিবার (৮ ডিসেম্বর) দুপুরে হেযবুত তওহীদের জেলা শাখা আয়োজিত মিট দ্য প্রেসে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন, মধুপুর উপজেলা হেযবুত তওহীদের সভাপতি মিনহাজ উদ্দিন।
লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, একটি উগ্রবাদী ধর্মান্ধ গোষ্ঠী মধুপুরে উন্মাদনা সৃষ্টির পায়তারা করছে। মধুপুরে অবস্থানরত হেযবুত তওহীদের সদস্যদের তারা ক্রমাগত প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে। তাদের বাড়িঘর ভাংচুর-লুটপাট ও জ্বালাও-পোড়াও করার পায়তারা করছে। তারা হুমকি দিচ্ছে- হেযবুত তওহীদের সদস্যরা রাস্তায় বের হলে তাদের উপর হামলা করবে। এ ধরণের হুমকিতে মধুপুর এলাকার হেযবুত তওহীদের সদস্য ও তাদের পরিবারের সদস্যরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে।




এজন্য এমতাবস্থায় হেযবুত তওহীদের পক্ষ থেকে গত ২৬ নভেম্বর মধুপুর থানায় অভিযোগ দায়ের করা হয়। কিন্তু তারা আইনের তোয়াক্কা না করে গত শুক্রবার(২ ডিসেম্বর) বিকাল তিনটার দিকে ৩০-৪০ জন সন্ত্রাসী প্রকৃতির লোক হেযবুত তওহীদের মধুপুর উপজেলার সদস্য জাকির হোসেনের বাড়িয়ে গিয়ে তাকে এলাকা ছাড়ার আল্টিমেটাম দেয়। অন্যথায় তার বাড়িঘর ভাংচুর করে তাকে এলাকা থেকে তাড়িয়ে দেওয়ার ঘোষণা দিয়ে আসে।
মিট দ্য প্রেসে জানানো হয়, হেযবুত তওহীদের জেলা শাখার নেতারা জানতে পেরেছেন- উগ্রবাদী ধর্মান্ধ গোষ্ঠী আগামিকাল শুক্রবার বাদ জুম’আ মধুপুর উপজেলার সদস্যদের বাড়িঘর ভাংচুর ও তাদেরকে মারধর করে এলাকাছাড়া করার প্রস্তুতি নিয়েছে। বিষয়টি তারা মধুপুর থানা পুলিশকে অবহিত করলেও তারা কোন ব্যবস্থা নেয়নি। বাধ্য হয়ে আশঙ্কার বিষয়টি তারা গণম্যামকে অবহিত করতে মিট দ্য প্রেসের আয়োজন করেছেন।
মিট দ্য প্রেসে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, হেযবুত তাওহীদের কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক এনামুল হক বাপ্পা, ময়মনসিংহ বিভাগীয় সাংগঠনিক সম্পাদক রাসেদুল ইসলাম, টাঙ্গাইল জেলা শাখার সভাপতি হাবিবুর রহমান প্রমুখ।
এ বিষয়ে মধুপুর থানার অফিসার ইনচার্জ(ওসি) মোহাম্মদ মাজহারুল আমীন জানান, এ বিষয়ে থানায় উভয় পক্ষের পক্ষ থেকে পাল্টাপাল্টি অভিযোগ ও জিডি করা হয়েছে। পুলিশের পক্ষ থেকে উভয়পক্ষকে শান্ত থাকার জন্য বলা হয়েছে। দুই পক্ষের সঙ্গে পুলিশের আলোচনা ও একই সাথে অভিযোগের তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় আইনগত ব্যবস্থা গ্রহন করবেন। মধুপুরে কাউকে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে দেওয়া হবেনা বলে তিনি উল্লেখ করেন।

 




ব্রেকিং নিউজঃ