টাঙ্গাইলে স্ত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যা মামলায় স্বামীর যাবজ্জীবন কারাদন্ড প্রদান

99

আদালত সংবাদদাতা ॥
টাঙ্গাইলে দেড় লাখ টাকা যৌতুকের দাবিতে স্ত্রীকে আগুনে পুড়িয়ে হত্যার দায়ে স্বামীকে যাবজ্জীবন কারাদন্ড দিয়েছে নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক খালেদা ইয়াসমিন। মঙ্গলবার (৫ জুলাই) দুপুরে আসামীর উপস্থিতিতে তিনি এ রায় ঘোষনা করেন। দন্ডিত ব্যক্তি টাঙ্গাইল পৌর শহরের আদি টাঙ্গাইল এলাকার মৃত আব্দুস সালামের ছেলে সুজন মিয়া (৩৫)।

 

টাঙ্গাইল নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের এপিপি মোহাম্মদ আব্দুল কুদ্দুস টিনিউজকে জানান, প্রায় ১৪ বছর পূর্বে সুজন মিয়ার সাথে আদি টাঙ্গাইল দাসপাড়া (মাঝিপাড়া) শিউলী আক্তারের (২৭) বিয়ে হয়। বিয়ের পর দেড় লক্ষ টাকা যৌতুকের দাবিতে তার স্বামী বিভিন্ন সময় শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন করতো। বিগত ২০১৪ সালের (১৭ জুন) সকাল ১১ টার দিকে তার স্বামী ঘরের দরজা বন্ধ করে যৌতুকের টাকার জন্য স্ত্রী শিউলীকে মারপিট করে। পরে পরিকল্পিতভাবে সেভেনআপের বোতল ভর্তি কেরোসিন তেল ঢেলে তার স্ত্রীর শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। এ সময় স্ত্রী শিউলীর ডাকচিৎকারে আশেপাশের লোকজন এগিয়ে এসে শিউলীকে উদ্ধার করে প্রথমে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়। পরে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়। ঘটনার পরের দিন (১৮ জুন) হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শিউলী আক্তারের মৃত্যু হয়। পরে তার ভাই শিবলু মিয়া বাদী হয়ে বিগত ২০১৪ সালের (১৮ জুন) টাঙ্গাইল সদর থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

ব্রেকিং নিউজঃ