টাঙ্গাইলে সমাজ সেবা অধিদপ্তরের নিয়োগ পরীক্ষায় ডিভাইসসহ নারীকে কারাদন্ড

114

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলে সমাজ সেবা অধিদপ্তরের ইউনিয়ন সমাজকর্মী পদের নিয়োগ পরীক্ষার ইলেকট্রনিক ডিভাইসসহ এক নারীকে আটকের পর ৭ দিনের কারাদন্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত। শুক্রবার (২১ অক্টোবর) দুপুরে সরকারি এমএম আলী কলেজে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রানুয়ারা খাতুন এ দন্ডাদেশ দেন। দন্ডিত লিজা খাতুন (২৬) গোপালপুর উপজেলার মনতলা গ্রামের হায়দার আলীর মেয়ে।




জানা যায়, শুক্রবার (২১ অক্টোবর) সকালে সমাজ সেবা অধিদপ্তরের ইউনিয়ন সমাজকর্মী পদের নিয়োগের লিখিত পরীক্ষা ছিলো। সে মোতাবেক সরকারি এমএম আলী কলেজে কেন্দ্র দেয়া হয়। লিজা খাতুন গেটের চেকিং ফাঁকি দিয়ে ডিভাইসসহ পরীক্ষা কেন্দ্রে প্রবেশ করেন। পরবর্তীতে পরীক্ষা চলার ১ ঘণ্টা পর ডিভাইসসহ তাকে আটক করা হয়।




এ ব্যাপারে সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রানুয়ারা খাতুন টিনিউজকে বলেন, ডিভাইসসহ আটকের পর ওই নারীকে ৭ দিনের কারাদন্ড দেয়া হয়েছে। মূলত ওই ডিভাইসটি মোবাইলের মতো কাজ করে। ডিভাইসটি যখন আমার কাছে আসে তখন অন্য পাশ থেকে একজন কানেক্টেড ছিলো। ওই ব্যক্তি অনবরত প্রশ্নের উত্তর বলেই যাচ্ছে। তিনি আরো বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে জানা যায় টাকার বিনিময়ে ঢাকার লোকজনের সাথে ওই নারী কন্টাক করেছিলো বলে তিনি জানান।

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ