টাঙ্গাইলে শীতের সবজির আগাম চাষ গ্রীষ্ম বর্ষায় আবাদ

74

জাহিদ হাসান ॥
ঋতুর পালাবদলে ফসল সময় পাল্টেছে। সকল ঋতুতে ফলানোর ধান না হয় অনেক ভ্যারাইটি এসেছে। তাই বলে শীতের সবজি গরমের (গ্রীষ্ম, বর্ষা, শরতে) মধ্যে ফলবে! এমনটিই ঘটেছে টাঙ্গাইল জেলায়। শীত আসতে এখনও অনেকটা সময় বাকি। এর মধ্যে টাঙ্গাইল জেলার সদর, দেলদুয়ার, মধুপুর, ধনবাড়ী, ঘাটাইল ও সখীপুরে বিভিন্ন গ্রামে শীতের সবজি ফুল কপি, বাঁধা কপি, টমেটো, বরবটি, শিম, পালং শাক, পুঁই শাক, বেগুন, মুলা, গাজর, করলাসহ শীতের সব ধরনের সবজি ফলছে।

টাঙ্গাইল সদর উপজেলার আলোকদিয়া গ্রামের কৃষক সমসের উদ্দিন টিনিউজকে বলেন, কিছুই কওয়া যায় না বাবা। কলিকালে সব পাল্টে গেছে। গরমের মধ্যে ফুল কপি, মূলা, বেগুন, গাজর হয় তাও দেখা লাগে। এই বিষয়ে কৃষি বিভাগ জানায়, সময়ের ঋতু সময়ে ঠিক থাকছে না। প্রকৃতির মতিগতি পাল্টে গিয়েছে। এখন সকল সিজনে সব ধরনের ফসল মিলছে। তাছাড়া উন্নত জাতের অনেক বীজ এসেছে। বাড়তি পরিচর্যায় শীতের ফসল গ্রীষ্মে মিলছে।

 

এদিকে টাঙ্গাইলে মাত্রাতিরিক্ত গরমের মধ্যে যখন মানুষের হাঁসফাঁস অবস্থা তখন মধ্যরাতে ভোরে কুয়াশাপাত হতেও দেখা যায়। অসময়ের এই কুয়াশাপাত মানুষকে ভাবিয়ে তুলেছে। প্রকৃতি ভারসাম্য হারিয়ে না জানি কোন বিপর্যয় ডেকে আনে। মাঝেমধ্যে যে ভূকম্পন অনুভূত হচ্ছে তাও প্রকৃতির পালাবাদলের কারণে হচ্ছে এমনটি মনে করেন বিজ্ঞানীগণ। এই কুয়াশাপাত যে শীতের সবজিকে গ্রীষ্ম বর্ষায় আগাম ফলিয়ে দিচ্ছে। তাও মনে করছেন কৃষি বিজ্ঞানীগণ। টাঙ্গাইলের বিভিন্ন এলাকায় কৃষকদের সবজি আবাদ পরিচর্যায় দেখা যায়। টাঙ্গাইল সদরের হুগড়া গ্রামের কৃষক মসলিম উদ্দিন বললেন, তিনি জ্যৈষ্ঠ মাসে ফুলকপি ও বাঁধাকপির চাষ করেছিলেন দশ শতাংশ জমিতে। বৃষ্টি না হওয়ায় এবং কুয়াশাপাতের কারণে ঈদের আগে তিন হাজার টাকা মণ দরে ফুলকপি বিক্রি করেছেন। শীত মৌসুমের চেয়ে দ্বিগুণ দাম পেয়েছেন। তিনি জানান, গত ছয় মাসে তিন বার সবজি ফলন ঘরে তুলেছেন। শীতের সবজি গ্রীষ্মকালে বেচলে বেশি দাম পাওয়া যায়।

আশপাশের গ্রামে এই সময়ে কৃষক এক ফসল সবজি বিক্রি করে পুণরায় সবজি আবাদের কেউ চারা রোপণ করছে কেউ উঠতি সবজি আবাদে পরিচর্যা করছে। সবই শীতের আগাম সবজি। এই সবজির তরকারির স্বাদ কি শীতের সবজির মতো! না কোন পার্থক্য আছে। এই বিষয়ে টাঙ্গাইল শহরের গৃহিণী তানিয়া আক্তার টিনিউজকে বলেন, তিনি পালং শাক রেঁধেছিলেন স্বাদ একই। গ্রীষ্মের পালং শাক পাতার আকার বড়। বেগুনের স্বাদে কোন পরিবর্তন নেই।

এই বিষয়ে কৃষি সম্প্রসারণ অফিসের মাঠ পর্যায়ের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আনিসুজ্জামান টিনিউজকে জানান, গত কয়েক বছর ধরেই টাঙ্গাইলে সবজি আবাদে বড় ভূমিকা পালন করছে। প্রতি বছর সবজি আবাদের জমি বাড়ছে। শীতের বাইরে গ্রীষ্ম, বর্ষা ও শরতে যে সবজি আবাদ হয় তা টার্গেটের অতিরিক্ত। কৃষক নিজের গরজেই সবজি আবাদ করে।

ব্রেকিং নিউজঃ