টাঙ্গাইলে ব্রাজিল-আর্জেন্টিনা নিয়ে কেন এত উন্মাদনা

115

হাসান সিকদার ॥
চার বছর পরপর বিশ্বকাপ ফুটবল অনুষ্ঠিত হয়। ফুটবল বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় খেলা। ফুটবল জ্বরে এখন কাঁপছে বিশ্ব। কাতারে শুরু বিশ্বকাপ ফুটবলের ২২তম আসর। চার বছর পরপর আসে বিশ্বকাপ। বিশ্বকাপ এলেই দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায় এশিয়ার অন্যতম দেশ বাংলাদেশের অধিকাংশ মানুষ। ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনা দলকে নিয়ে বাংলাদেশে যে উন্মাদনা দেখা যায়, তা বিশ্বে একটু বিরল। এমন একটি দেশে ফুটবল নিয়ে এমন উত্তেজনা, যেটিকে ক্রিকেটপাগল দেশ বলে মনে করা হয়। এমনকি বাংলাদেশের বেশির ভাগ মানুষের জীবনে কোনো দিন আর্জেন্টাইন বা ব্রাজিলিয়ানদের সঙ্গে দেখাও হয়নি। বাংলাদেশ থেকে ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার দূরত্ব হাজারো মাইল দূরে। তারপরও ফুটবল নিয়ে এমন উন্মাদনা।




বাংলাদেশসহ টাঙ্গাইল জেলায় ব্রাজিল ও আর্জেন্টিনার সমর্থকই বেশি। এর পরপরই রয়েছে জার্মানি, ফ্রান্স, স্পেন ও পর্তুগালের সমর্থকরা। তবে একটু কম বললেই চলে। বেশিরভাগ সমর্থক লিওনেল মেসি, ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো আর নেইমারের ভক্ত। রোনালদো, নেইমার ও মেসির মধ্যে কে সেরা ভক্তদের মধ্যে এই লড়াই চললেও রোনালদোর পর্তুগালের সমর্থকের সংখ্যাও কম নয়।




ফুটবলে একটি দলের মনোনীত কয়েক রঙের জার্সি থাকে। সমর্থকরা সবাই তাদের পছন্দের জার্সি কিনে তা গায়ে দিয়ে ঘুরে প্রমাণ করেন তারা সেই দলের ভক্ত। কথা হয় ব্রাজিলের সমর্থক অর্পণ কর্মকারের সঙ্গে। তিনি টিনিউজকে বলেন, আসলে যখন থেকে খেলা দেখি তখন থেকে ব্রাজিলের খেলা ভালো লাগে। খেলা দেখে ব্রাজিলের প্রেমে পড়ি। আর ব্রাজিল ৫ বারের বিশ্বকাপ জয়ী দল। সেদিক থেকেও ব্রাজিলের প্রতি ভালোবাসা জন্মে। তখন রোনালদিনহোর খেলা ভালো লাগত। আর বর্তমান দলে নেইমারসহ অনেক স্টার রয়েছে। সব মিলিয়ে আমি একজন ব্রাজিল ভক্ত। সাদ ইসলাম টিনিউজকে বলেন, নেইমারের ব্রাজিলের ভক্ত। তাঁর মতে, এটি উন্মাদনা! আপনি যদি এ ঘটনাকে এককথায় বলতে চান, ‘তবে এটি আসলে উন্মাদনা, যা পুরো দেশকে জাগিয়ে তোলে।’




আর্জেন্টিনার সমর্থক মোহাম্মাদ ফিরোজ টিনিউজকে বলেন, আমার পছন্দের দল আর্জেন্টিনা। প্রিয় দলের জন্য শুভকামনা রইল। মেসিবাহিনী যদি সেরা খেলাটা খেলতে পারে তাহলে আর্জেন্টাইনরাই বিশ্বকাপ ঘরে তুলবে। আমি পতাকা উড়িয়েছি এবং জার্সি গায়ে পছন্দের দলের খেলা উপভোগ করব এটাই আমার আনন্দ। আর্জেন্টিনার ভক্ত নোফেল ওয়াহিদ টিনিউজকে বলেন, ‘জনসংখ্যার দিক থেকে বাংলাদেশ একটি বড় দেশ।’ কিন্তু আপনি আর্জেন্টিনাভক্ত ও ব্রাজিলভক্তদের খেলা সম্পর্কিত নানা ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে দেশটিকে দুই ভাগে ভাগ করতে পারবেন। তিনি বলেন, এটি একটি মজার ব্যাপার। এ ক্ষেত্রে কোনো যুক্তিই খাটে না। লাতিন আমেরিকা থেকে এত দূরে দক্ষিণ এশিয়ার একটি দেশে ফুটবল নিয়ে এমন প্রতিদ্বন্দ্বিতা কেন? এটি ব্যাখ্যা করা কঠিন।

 

 

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ