টাঙ্গাইলে নৌকা তৈরি ও বেচাকেনার ধুম পড়েছে

96

স্টাফ রিপোর্টার ॥
এই বর্ষা মৌসুমে কাঠ মারাই করে নৌকা তৈরি ও বেচাকেনার ধুম পড়েছে টাঙ্গাইলে। অনেকে পুরাতন নৌকা মেরামত করে নিচ্ছেন চলাচলের উপযোগী করে। ধুম পড়েছে নৌকা তৈরী ও কেনা-বেচায়। কাঠ মারাই ও নৌকা তৈরীর কারিগররা এখন ব্যস্ত সময় পার করছেন। নৌকা বিক্রি করে তারা সংসারের সচ্ছলতাও আনছেন। জেলার নদী, নালা, খাল-বিলে এখন শুধু পানি আর পানি। এ সময়ে চাহিদা বেড়ে গেছে নৌকার।

নদীবেষ্টিত এলাকার জেলেরা নৌকা দিয়ে রাত দিন মাছ শিকারে ব্যস্ত হয়ে পড়ে। চরাঞ্চলের নিচু এলাকার বাসিন্দারা নৌকার মাধ্যমে খেয়া পার হয়ে এক গ্রাম থেকে অন্য গ্রাম ও স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, হাটবাজারে যায়। নদীতীরবর্তী গ্রামগুলোতে নৌকার ব্যবহার হচ্ছে যুগ যুগ ধরে। বন্যার সময় নৌকাই একমাত্র ভরসা। বন্যার পরপরই শুরু হয় নৌকা বাইচ।

 

সরজমিনে বিভিন্ন এলাকার নৌকার তৈরীর কারখানায় গিয়ে দেখা যায়, নৌকা তৈরীতে ব্যস্ত সময় পার করছেন কারিগররা। কেউ করাত দিয়ে কাঠ কাটায় ব্যস্ত। কেউ হাতুড়ি দিয়ে নৌকায় পেরেক বা গজাল লাগাতে ও কাউকে আবার তৈরি নৌকা বিক্রি করতেও দেখা গিয়েছে। সবমিলিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন নৌকা তৈরীর কারিগররা। তারা টিনিউজকে জানান, সারা বছর বিভিন্ন আসবাবপত্র তৈরী করলেও বর্ষাকালে নৌকা তৈরীতে তাদের ব্যস্ততা বেড়ে যায় কয়েকগুন। বর্তমানে প্রতিটি নৌকা বিক্রি হচ্ছে তিন হাজার থেকে আট হাজার টাকায়।
জেলার বিভিন্ন এলাকার দূর-দূরান্ত থেকে প্রতিদিন ক্রেতারা আসছেন নৌকা তৈরীর কারখানায়। ঘরে ঘুরে দেখছেন নৌকান ডিজাইন ও সাইজ। দরদাম করে নৌকা তৈরীর অর্ডার দিচ্ছেন। কেউবা আবার পছন্দ করে নৌকা কিনে যাচ্ছেন।

নৌকা নির্মাণ ও ব্যবহারের সুদীর্ঘকালের ঐতিহ্য রয়েছে। ঐতিহ্যবাহী এ বাহনকে ধরে রাখতে এবং নৌকা তৈরীর শ্রমিকদের শ্রমিকদের টিকিয়ে রাখতে সংশ্লিষ্ট সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে। তাহলেই নৌকা তৈরী শ্রমিকদের অবস্থার উন্নয়ন ঘটবে।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ