টাঙ্গাইলে খ্রিষ্টানদের উপাসনালয় নির্মাণে বাধা ॥ প্রশাসনের সহায়তা কামনা

220

স্টাফ রিপোর্টার ॥
টাঙ্গাইলে খ্রিষ্টধর্মাবলম্বীদের একটি উপাসনালয়ের নির্মাণকাজ হুমকি দিয়ে বন্ধ করে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে স্থানীয় কিছু ব্যক্তির বিরুদ্ধে। এতে নিরাপত্তাহীনতার কথা জানিয়ে প্রশাসনের সহায়তা চেয়েছে কয়েকটি খ্রিষ্টান পরিবার। ঘটনাটি ঘটেছে সদর উপজেলার দাইন্যা ইউনিয়নের দর্জিপাড়া গ্রামে।
স্থানীয় কয়েকজনের সঙ্গে কথা বলে জানা যায়, প্রায় ১৫ বছর আগে দর্জিপাড়া গ্রামের কয়েকটি পরিবার খ্রিষ্টধর্ম গ্রহণ করে। এডওয়ার্ড মজনু নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে প্রতি রোববার (২৩ জানুয়ারি) প্রার্থনা সভায় মিলিত হয় ওই পরিবারগুলো। সম্প্রতি একটি উপাসনালয় নির্মাণের জন্য দর্জিপাড়া গ্রামে আট শতাংশ জমি ক্রয় করেন তাঁরা। সেখানে নির্মাণসামগ্রী আনা হয়। গত শুক্রবার (২১ জানুয়ারি) উপাসনালয় ভবনের নির্মাণকাজ শুরু হয়। শনিবার (২২ জানুয়ারি) সকালে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা আখতার হোসেনের নেতৃত্বে শতাধিক লোকজন গিয়ে নির্মাণকাজে বাধা দেন।
সিয়োন ইভানজেলিক্যাল হলিনেস চার্চের পক্ষ থেকে রোববার (২৩ জানুয়ারি) টাঙ্গাইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) নির্মাণকাজে বাধা দেওয়ার বিষয়টি জানানো হয়। দর্জিপাড়া গ্রামে গিয়ে দেখা যায়, নির্মাণকাজ বন্ধ রয়েছে। তবে নির্মাণ শ্রমিকরা অবস্থান করছেন অস্থায়ী টিনের ছাপরায়।
দর্জিপাড়া গ্রামের বাসিন্দা মার্ক মকরম টিনিউজকে জানান, তিনি বিগত ২০১২ সালে খ্রিষ্টধর্ম গ্রহণ করেন। এর আগেও তাঁরা এলাকায় উপাসনালয় নির্মাণের উদ্যোগ নিয়েছিলেন। কিন্তু ভূমি জটিলতা ও স্থানীয় লোকজনের বিরোধিতায় করতে পারেননি। এবার কোনো ধরনের ঝামেলা নেই এমন জমি কিনেছেন তাঁরা। কিন্তু উপসনালয়ের নির্মাণকাজ শুরুর পর এখন স্থানীয় কিছু লোক বাধা দিচ্ছেন।
সিয়োন ইভানজেলিক্যাল হলিনেস চার্চের প্রধান ধর্মযাজক মৃনাল কান্তি বাউল টিনিউজকে বলেন, বাংলাদেশের সংবিধানে সবারই যার যার ধর্ম পালনের স্বাধীনতা রয়েছে। কিন্তু এখানে উপাসনালয় নির্মাণকাজ বন্ধ করার মধ্য দিয়ে তাদের সাংবিধানিক অধিকার হরণ করা হয়েছে। উপাসনালয় নির্মাণ যাতে নির্বিঘেœ করতে পারেন, সে ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের প্রতি অনুরোধ জানিয়েছেন তিনি।
ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আখতার হোসেন টিনিউজকে বলেন, ধর্মান্তর করা নিয়ে স্থানীয় লোকজনের ক্ষোভ রয়েছে। তাঁরা উপাসনালয় নির্মাণের ব্যাপারে স্থানীয় ইউনিয়ন পরিষদ থেকেও কোনো অনুমতি নেননি। এলাকাবাসীর দাবির পরিপ্রেক্ষিতে চেয়ারম্যানের সঙ্গে কথা বলে তাঁদের নির্মাণকাজ বন্ধ রাখতে বলা হয়েছে।
টাঙ্গাইল সদর থানার (ওসি) মীর মোশারফ হোসেন টিনিউজকে জানান, উপাসনালয় নির্মাণকাজে বাধা দেওয়ার বিষয়ে তিনি একটি লিখিত অভিযোগ পেয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে।

 

 

ব্রেকিং নিউজঃ