টাঙ্গাইলে উৎসবমুখর পরিবেশে করোনার গণটিকা কার্যক্রম শুরু

219

হাসান সিকদার ॥
টাঙ্গাইলে কোভিড-১৯ এর গণটিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। শনিবার (৭ আগস্ট) সকাল ৯টায় জেলার ১১৫টি ইউনিয়নের মধ্যে ৯৮টি ইউনিয়ন ও ১১টি পৌরসভার মধ্যে ৩টি পৌরসভা এলাকায় একযোগে এ টিকা কার্যক্রম চলছে। সংশ্লিষ্ট এলাকার সংসদ সদস্য, সরকারী কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধিবৃন্দ গণটিকা প্রদান কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। যারা অনলাইনে নাম রেজিস্ট্রেশন করতে পারেননি তারাও এই কার্যক্রমের আওতায় টিকা নিতে পারবেন। টিকার সময় ভোটার বা এনআইডি কার্ড সঙ্গে থাকলেই চলবে। সকাল থেকে বিকেল পর্যন্ত টিকা কার্যক্রম চলবে বলে জেলার স্বাস্থ্য বিভাগ জানায়।
সকাল থেকেই কেন্দ্রগুলোতে টিকা নিতে আগ্রহী বয়স্ক নারী-পুরুষের উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে। টিকা নিতে আগ্রহীরা মুখে মাস্ক পরে স্বাস্থ্যবিধি মেনে টিকা নিচ্ছেন। হাতের কাছে টিকা পাওয়ায় অনেক খুশি গ্রামের সাধারণ মানুষ। সারাদেশের হাসপাতালগুলোতে টিকা কার্যক্রম শুরু হলে গ্রামের মানুষের টিকা নিতে আগ্রহ অনেকটাই ছিল না। তাদের মধ্যে এক ধরনের ভীতি ছিল। প্রত্তন্ত গ্রামের গণটিকা কেন্দ্রগুলো ঘুড়ে দেখা গেছে, মানুষের মাঝে সে ভীতি আর নেই। তারা সাচ্ছন্দের সাথেই টিকা গ্রহণ করছেন। ঝামেলা বিহীনভাবে শুধুমাত্র জাতীয় পরিচয়পত্র দেখিয়ে বিনামুল্যে কোভিট-১৯ এর টিকা নেয়ার ব্যবস্থা করে দেয়ায় সরকারের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেছেন টিকা গ্রহণকারীরা।
এ ব্যাপারে সিভিল সার্জন আবুল ফজল মো. শাহাবুদ্দিন খান বলেন, শহর ও গ্রামাঞ্চলে একযোগে টিকা কার্যক্রম শুরু হয়েছে। প্রথমদিন ৯৮টি ইউনিয়ন কেন্দ্র এবং টাঙ্গাইল, মধুপুর ও গোপালপুর পৌরসভার ২৪টি কেন্দ্রে টিকা দেয়া হচ্ছে। বাকি ১৭ টি ইউনিয়নে শনিবার (৭ আগস্ট) শিশুদের রুটিন টিকা দেয়ার কার্যক্রম থাকায় রোববার (৮ আগস্ট) সেখানে কোভিড এর টিকা দেয়া হবে। প্রতিটি ইউনিয়নের একটি কেন্দ্রে ৬শ’ ডোজ টিকা দেয়া হবে। এছাড়া পৌরসভা কেন্দ্রে ২শ’ ভোজ টিকা দেয়া হবে। এরপর থেকে ইউনিয়ন পর্যায়ে ১১৫টি কেন্দ্রে টিকা দেয়া হবে। অগ্রাধিকার ভিত্তিতে ২৫ বছরের উর্দ্ধে, বয়স্ক, মুক্তিযোদ্ধা এবং প্রতিবন্ধীদের টিকা দেয়া হবে। তিনি সবাইকে টিকা নেয়ার জন্য আহবান জানান।

ব্রেকিং নিউজঃ